ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার নাদপাড়া গ্রামে শুক্রবার নাসরিন সুলতানা (২৪) নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত নাসরিন সুলতানা নাদপাড়া গ্রামের আব্বাস উদ্দীনের স্ত্রী ও একই উপজেলার কবিরপুর গ্রামের নজির উদ্দীনের মেয়ে।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুল ইসলাম জানান, গৃহবধূ নাসরিন শুক্রবার নিজ ঘরে তার জা’র সঙ্গে ঘুমিয়ে ছিলেন। তিনি আরো জানান, এ সময় তার স্বামীর ভাগ্নে কুমারখালী উপজেলার আনন্দনগর গ্রামের তোরাব আলীর ছেলে হোসেন আলী ভোর ৪টার দিকে এলোপাথাড়ী কুপিয়ে জখম করে। আহত নাসরিনকে প্রথমে ঝিনাইদহ ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে শক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মৃত্যু বরণ করেন। হত্যাকান্ডের কারণ সম্পর্কে গ্রামবাসির উদ্বৃতি দিয়ে শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুল ইসলাম শাহিন জানান, নিহত’র স্বামী আব্বাস উদ্দীন ঢাকায় থকার কারণে ভাগ্নে হোসেন আলী মামীকে প্রায় উত্যক্ত করতো। তিনি জানান, মামী নাসরিনের স্বভাব চরিত্র ভাল হওয়ায় মামার বাড়িতে থেকে পড়ালেখা করা ভাগ্নে হোসেন আলীর কুপ্রস্তাবে রাজি ছিলেন না। এ কারণেই ভাগ্নে হোসেন আলী ক্ষিপ্ত হয়ে মামীকে খুন করে বলে প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ মনে করছে। এ ঘটনার পর থেকেই ঘাতক ভাগ্নে পলাতক রয়েছে।

মিজানুর রহমান,কালীগঞ্জ,ঝিনাইদহ
০১.০৬.১২

***
প্রকাশিত হয়েছে: http://bd24live.com