ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

যারা যেই মোটিভে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে, সেই ‘মোটিভ’ বাস্তবায়ন করার জন্যই একটি ওয়েবসাই্টে আরবী ব্যানার লিখেছে। আতঙ্ক ছড়ানোর জন্য এই সময়টা আইএস এর নাম ব্যবহার করা একটি মোক্ষম হাতিয়ার। আইএস কোন স্বার্থে এই গরীব দেশে নিরহ বিদেশিকে মারবে? ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’এর কাজই এই সব ছোটবড় বালছাল জিনিস বিভিন্ন জঙ্গি সাইট থেকে সংগ্রহ করে এসব প্রকাশ করা। তবে অদ্ভুত ব্যাপার হচ্ছে এরা কোন পাপের অপরাধে এই মহিলাকে হত্যা করেছে তা বলেনি। (অন্যান্ন হামলায় সময় হত্যার কারনটা ফলাও করে প্রকাশ করে) তাদের উদ্দেশ্য একটাই। প্রমাণ করা যে দেশটা সাদা চামড়ার লোকদের জন্যে ভয়ংকর।

যে সময় অস্ট্রেলিয়ার সিকিউরিটি টিম ঢাকায় বাংলাদেশের নিরাপত্তা সংশ্লিস্টরা যখন অস্ট্রেলিয়ান নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দলকে আশ্বস্থ করতে সব রকম চেষ্টা করছিল, সেই নাজুক সময়টাতে ভিআইপি দুতাবাস এলাকায় এই নিরীহ বিদেশি হত্যাকাণ্ড দেশের বিরুদ্ধে অনিষ্ট পরিকল্পনার অংশ বলে মনে হয়। অস্ট্রেলিয়া সফর ভেস্তে দেয়া ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশকে খাটো করে কায়েমি স্বার্থ বাস্তবায়ন করাই এইসব দুষ্টচক্রের লক্ষ্য।