ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

 

পাকিস্তানীরা অবশেষে স্বীকার করলো জঙ্গি নেটওয়ার্ক তাদেরই সৃষ্টি।
আল কায়েদার নেতা ওসামা বিন লাদেন ও আয়মান আল জাওয়াহিরি পাকিস্তান সরকারের কাছে সবসময়েই ‘হিরো’ ছিল।
এমন স্বীকারোক্তি দিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক স্বৈরশাসক পারভেজ মোশাররফ। সাক্ষাতকারে বলেন – “ধর্মীয় জঙ্গিবাদ সৃষ্টি হয়েছিল পাকিস্তানেই”। পাকিস্তানের ‘দুনিয়া নিউজ’ কে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি এসব কথা খোলাখুলি বলেছেন।

শুধু তালেবান না, লস্করে তৈয়বা, জামায়াতুদ দাওয়া, হাক্কানি নেটওয়ার্ক মতো ভয়ঙ্কর গ্রুপ সমর্থন ও প্রশিক্ষণ দিয়েছে পাকিস্তান। তিনি বলেন, ১৯৭৯ সালে ধর্মীয় মিলিট্যান্সির পক্ষে ছিল পাকিস্তান। তার ভাষায়, “আমরা তালেবান-আলকায়দাদের আমরাই প্রশিক্ষণ দিয়েছি”।
তিনি বলেন ধর্মীয় জঙ্গিবাদ সৃষ্টি হয়েছিল পাকিস্তানে। কারণ, সারাবিশ্বের জঙ্গিদের সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে লড়াই করতে জড়ো করা হয়েছিল পাকিস্তানে।
লস্করে তৈয়বার নেতা হাফিজ সাঈদ ও জাকিউর রহমান লাকভি সম্পর্কে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ওই সময় তাদের মতো লোকেরা পাকিস্তানে বীরের মর্যাদা ভোগ করছিলেন। তার ভাষায়, ওই সময়ে হাফিজ সাঈদ ও লাকভির মতো কাশ্মীর আন্দোলনের নেতারা আমাদের কাছে পুর্ন সমর্থন পেয়ে এসেছেন। পরে এইসব ধর্মীয় যোদ্ধারা সন্ত্রাসে ঢুকে যায়। এখন তারা মানুষ হত্যা করছে। তাদের নিজেদের মানুষকেও হত্যা করছে। এখন তাদেরকে নিয়ন্ত্রণ করা দরকার। তাদেরকে থামানো দরকার।
সাঈদ ও লস্করকে (পার্লামেন্ট ভবন হামলা, মুম্বাই হামলার মুলহোতা) কি এখনি নিয়ন্ত্রণ ও থামানো উচিত?
এ প্রশ্নের জবাবে কোন মন্তব্য করতে রাজি হন নি মোশাররফ।

এই হট নিউজটি টিভি মিডিয়াতে এক পলক, সামান্যই এসেছে। বিবিসি ও আলজাজিরা অবস্য ব্যাপক প্রাধান্য দিয়েছে।
এদেশের পত্রিকাগুলোতেও ভেতরের পাতায় খুব ছোট করে এসেছে। মানবজনিন পত্রিকায় ছাপালেও অনলাইন ভার্শান থেকে দ্রুত সরিয়ে নিয়েছে।