ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

রেজোয়ান দম্পতি

৬ মাসের ফুটফুটে আদরের একমাত্র সন্তান।
এই সন্তানকে পৃথিবীতে একা ফেলে রেখে এরা ১৪ জন তরতাজা মানুষকে মেরে ফেলা? নিজেরাও মরে যাওয়া?

দ্রুত বেহেস্তে যাওয়া কি এতই দরকার হয়ে পড়লো?
রিজওয়ান পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত উচ্চশিক্ষিত মার্কিন নাগরিক। তার পিতামাতাও উদার ভদ্র মুসলিম হিসেবে ভালই ছিল।
রিজওয়ান ২০১৩ তে হজে যাওয়া, এরপর বিয়ে করা। তাঁর স্ত্রী তাশফিনের ও পাকিস্তানী। বিয়ের আগ পর্যন্ত সৌদি আরবে বসবাসকারি। জঙ্গি সংস্লিষ্টতা নেই, তবে হয়তো স্ত্রী সুত্রেই জেহাদি মন্ত্রনা।

রাজ্য নেই খলিফা নেই, নেই যুদ্ধ কৌশল, নেই জয়লাভের কৌশল। সুধু মানুষ হত্যা, এ কোন যেহাদ?
হতভাগ্য রিজওয়ানদের কোন মেসেজ ছিলনা, অযুহাত ছিল না, দাবীও ছিল না।
সুধু লক্ষ একটাই। কিছু কাফের মেরে শহিদ হব। এরপর ঝলমলে জান্নাত!

এ কোন কিছিমের যেহাদ?
মক্কা বিজয়ের পর ভিন্নধর্মি ভিন্নমতাবলম্বিদের কি মেরে ফেলা হয়েছিল?
কোরান-হাদিসে কোথায় লেখা আছে ভিন্নধর্মিদের মেরে ফেলতে হবে?
তাহলে কেন? ভিন্নধর্মিদের মেরে যেহাদি কর্ম ভেবে মেরে আত্নাহুতি?
৬ মাসের ফুটফুটে আদরের একমাত্র সন্তান কে ফেলে রেখে দ্রত জান্নাতে যাওয়ার কেন এই প্রবনতা?