ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনকে চূড়ান্ত রূপ দিতে বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া এবার চট্টগ্রাম অভিমুখে রোড মার্চ শুরু করেছেন, আজ সকাল সোয়া ১০ টার দিকে খালেদা জিয়া গুলশানের বাসা থেকে নয়া পল্টনের উদ্দেশ্যে রওনা হন। পৌনে ১১টায় নয়া পল্টনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয় রোডমার্চ। রোডমার্চ এর বহর তখনও কুমিল্লা পৌছেনি ইতিমধ্যে রোডমার্চের পথসভার মঞ্চে বসা নিয়ে কুমিল্লায় বিএনপির দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও মারামারির ঘটনা ঘটেছে । এতে আহত হয়েছে অন্তত ২০ জন । অপর দিকে মঞ্চের সামনে জায়গা দখল কে কেন্দ্র করে ফেনীতে সংঘর্ষে জড়িয়েছে ছাত্রদল ও ইসলামী ছাত্রশিবির কর্মীরা । দফায় দফায় এ সংঘর্ষে আহত হয়েছে কয়েকজন।

সত্যিই কি এই সংর্ঘষকারীরা জনগণের অধিকার আদায়ে সরকারের বিভিন্ন অপকর্মের প্রতিবাদ করতে এসেছেন না দখলবাজী আর স্বার্থবাজী করতে এসেছেন ।এই যদি হয় জনগণের স্বার্থসরক্ষণ কারী সচেতন কর্মী তবে আমরা শংকিত দেশ কোন পথে আগাচ্ছে ভয়াবহ সংকেত ।

জনগণ কি বারবার প্রতারিত হবে এ সব স্বার্থন্বেষীদের হাতে?

গতকাল এক বক্তৃতায় মাননীয় প্রধান মন্ত্রী মাননীয় বিরোধী দলীয় নেত্রীকে উদ্দ্যেশ্য করে বলেন-‘‘ তত্ত্বাবধায়ক সরকার এলে আপনাকে ও জেলে যেতে হবে ।’’ তিনি যখন আগে থেকেই জানেন তত্ত্বাবধায়ক সরকার এলে কি হবে । কোথায় সমাধানের পথ বের করবেন তা না একনেত্রী দখলবাজ আর স্বার্থবাজ নিয়ে রোডমার্চ করছেন তো অন্যনেত্রী অহেতুক শংকার কথা জাতীকে শোনাচ্ছেন । তাও বলছেন না আসুন আমরা দুজনে বসে একটা সমাধান করি । এ যদি হয় রাজনীতির শিষ্ঠাচার আমরা সাধারণ জনগণের নতুন করে ভাবার অবকাশ আছে ।