ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক বিরোধীদলীয় নেত্রী এবং সংসদের সাবেক মাননীয় প্রধান মন্ত্রী দীর্ঘ ৬৭ দিন স্বেচ্ছায় গৃহবন্দী থেকে একের পর এক কর্মসূচী দিয়ে যাচ্ছেন, যাতে সাধারন জনগনের সাড়া প্রথম দিকে কিছুটা মিললেও বর্তমানে সাধারন জনগনতো দূরে থাক নিজ দলীয় কিংবা জোটের কোন নেতা কর্মীরাও নেই।রাস্তা ঘাট, পরিবহন ব্যবস্থা,দোকানপাট, কলকারখানা সবই স্বাভাবিক।শুধু আমরা নিরীহ জনগনের মনের মধ্যে সবসময় ভর করে কখন যে একটা পেট্রোল বোমা এসে আমাদের জীবনকে তচনচ করে দেয়। এই পেট্রোল বোমা নামক দানবের ভয়ই আজ সারাদেশের আমাদের মত নিরীহ রেচারাদের আতংকিত করে তুলছে। অবরোধের মধ্যে বিএনপি পন্থী আইনজীবিগন গাড়ি চালিয়ে আদালতে যাচ্ছেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যগন গুলশানে চেয়ারপার্সনের দলীয় ও রাজনৈতিক কার্যালয়ে যাচ্ছেন। বিএনপি পন্থী গাড়ির মালিকরা গাড়ি চালাচ্ছেন। ব্যবসায়ীরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলছেন। মাঝখানে আমরা নিরীহ বেচারা স্বাভাবিক চলফেরা করতে পারছিনা। কারন এই অবরোধ যে শতাধিক মানুষ অগ্নিদগ্ধ হয়েছে সবাই আমাদের নিরীহ বেচারা।

মাননীয় বিএনপির চেয়ারপার্সনের বড় ছেলে স্বপরিবারে যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন। ছোট ছেলের মৃত্যুর চারদিন পরে পরীক্ষার অজুহাতে তার ছেলে মেয়েদের মালেশিয়ায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিএনপি এবং আওয়ামীলীগের বড় বড় নেতাদের ছেলে মেয়ে বিদেশে অবস্থান করছেন।যার কারনে দেশ যদি তলে যায় তাদের কিছু যায় আসে না, সবেই আমরা নিরীহ বেচারা ভোগ করি। আর আমদের কষ্টার্জিত অর্থই তাদের ছেলে মেয়ের পিছনের বিদেশে খরচ করা হয়।তাদের সবই ঠিক কিন্তু ঠিক নেই আমরা নিরীহ বেচারারা। রাস্তায় গাড়ি প্রচুর কিন্তু ভাড়া বাড়তি কারন একটাই অবরোধ। বাজারে পন্য পরিবহন স্বাবিকের চেয়ে বেশি কিন্তু দাম একটু বেশি কারন অবরোধ। কাজ আছে কিন্তু মজুরী কম কারন অবরোধ। গত কালকে যখন বিএনপির চেয়ারপার্সন সংবাদ সম্মেলন করার ঘোষনা আসছিল, তখন আমরা সাধারন নিরীহ বেচারারা আশান্বিত হয়েছিলাম। ৬৭দিন পরে হয়তো মাননীয় চেয়ারপার্সন এর ববোধয় হয়েছে আমরা নিরীহ বেচারারা এই দেশে বসবাস করি এবং বিএনপিকে সবচেয়ে বেশি ভোট দিই। কিন্তু না আসলে আমরা যে এদেশে বসবাস করি তিনি সেটা ভুলে গেলেন এবং আবারো ঢাকা শহরের বড় বড় দালানের দিকে তাকালেন এবং আমাদেরমত নিরীহ বেচারাদেরকে হতাশ করলেন। তিনি আমাদের ভোটের অধিকারের জন্য আন্দোলন করছেন। আমি বলব মাননীয় চেয়ারপার্সন আমাকে আগে বাঁচার অধিকার দিন তারপর আমার ভোটের অধিকার।কারন আপনি জানেন এদেশের নিরীহ বেচারারাই শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমনের আদর্শের বিএনপি করেন। আর বেশিরভাগ এলিট শ্রেনী অন্যান্য দল করেন। আপনার অবরোধ হরতালে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় আমাদের মত গাও গেরামের নিরীহ সাধারন বেচারারা। কারন আমাদের উৎপাদিত পন্য অবরোধের অজুহাতে সঠিক মূল দেওয়া হয় না। পরিশেষে বলব আপনার আমাদের নিরীহ বেচারাদের রেহায় দিন আর আপনার বিলাসিতার অবরোধ প্রত্যাহার করেন, আমাদের মত নিরীহ বেচারাদের বাঁচতে দিন।