ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম জনসংখ্যার দেশ এই বাংলাদেশ। এদেশের ৫৭ হাজার বর্গমাইলে লক্ষ লক্ষ মসজিদ মাদরাসা রয়েছে। লক্ষ লক্ষ আউলিয়া কিরামগণ উনাদের মাযার শরীফ রয়েছে। এদেশের মুসলমানরা ধর্মভীরু হিসেবে বিশ্বে বহুল পরিচিতি লাভ কড়েছে। বর্তমানে এদেশের উপর কাফির-মুশরিকরা বিভিন্ন পর্যায়ে মুসলিম সমাজে ঢুকে পরেছে। সংস্কৃতি থেকে শুরু করে শিক্ষাব্যবস্থাসহ ধর্মীয় বলয়ে অত্যন্ত কূটকৌশলে পবিত্র ইসলাম ও সুন্নাহ শরীফ-এর আমল সরিয়ে দেয়া হচ্ছে। এখন অপসংস্কৃতির দাপট একচেটিয়া প্রভাব বিস্তার করছে।

ব্যবসাকে মহান আল্লাহ পাক তিনি হালাল করেছেন। আর সুদকে হারাম করেছেন। হায়! বাংলাদেশে এখন সুদের এতোই প্রভাব যে হালাল ব্যবসা অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়েছে। হাইকোর্ট, জজকোর্টসহ প্রশাসনের সর্বত্রই অনৈসলামিক আইন, নিয়ম-কানুন খুবই মজবুতভাবে দখল করে আছে।

এক কথায় বাংলাদেশের মুসলমানদের আমল-আখলাক্ব, সুরত-ছিরত এখন অনেক পরিবর্তন হয়ে গেছে। মুসলমানদের মধ্যে শতকরা ৯৯ জনই নামকাওয়াস্তে মুসলমান। বাকি একজন হাক্বীক্বী মুসলমান তাও দুষ্কর। নাঊযুবিল্লাহ! এরই পরিণামে বিদেশী শত্রু এখন আমাদের উপর এসে চেপে বসতে চায়। তাই কুরআন শরীফ, হাদীছ শরীফ, ইজমা ও ক্বিয়াসের আলোকে মুসলমানদের ঈমান, আমল ও আখলাক্বকে দুরস্ত করা ফরয। তবেই বিদেশী আক্রমণ থেকে নিস্তার পাওয়া যাবে। মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের মদদ করুন। আমীন।