ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

আমাদের সমাজ থেকে মানবতা, বিবেক, একেওপরের প্রতি সহিঞ্চু আচরণ, বড়দের প্রতি সন্মান ও ছোটদের প্রতি স্নেহ উঠে গেছে মনে হয়, এটা আমার ব্যাক্তিগত মত।

রাজনীতিবিদরা আমাদের দেশটার আদর্শ ও নৈতিকতার যত অবক্ষয় করেছে তা আর কেউ করেনি।

আমার লেখা দেশের রাজনীতিবিদদের উপর ভিত্তি করেই লিখা আমার মাথায় মাঝে মাঝে উতভ্রান্ত প্রশ্ন আসে এটা তারই অংশ।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ও জনাব সাদেক হোসেন খোকা ও অন্যান্য অর্থাৎ মুক্তিযুদ্ব যারা দেখেছেন এবং মুক্তিযুদ্বা তাদের প্রতি।

০১. তারেক রহমান সাহেব কি তাদের থেকে বেশি বয়স্ক না ইতিহাসবিদ?

০২. তাঁরা তারেক রহমানের নিকট ইতিহাস শিখবেন না শিখাবেন?

০৩. তাঁরা তারেক রহমানকে রাজনিতি্র গুরু মানেন?

০৪. সিনিয়র ব্যাক্তি বা নেতা হিসেবে কে দীক্ষা নিবেন তারেক রহমান না এই ব্যাক্তিবর্গ?

০৫. তারেক রহমান জা বলবে তাই এই ব্যাক্তিবর্গের কি পাথেয় রাজনিতির ময়দানে?

০৬. তারেক রহমানই যদি সব তাহলে তাঁদের অতীত আদর্শ ও শিক্ষা গ্রহন সব জলাঞ্জলি দিতে হবে নয় কি?

**********************

আওয়ামিলীগ কিছু কিছু উচ্চ শিক্ষিতমন্ত্রী ও নেতাদের নিয়েও কিছু এরকম প্রশ্ন ।

কিছু কিছু মন্ত্রী একেক সময় তাঁদের মন্ত্রীদের নিয়েই এমন এলো মেল কথা বলেন জা মন্ত্রীকে নয় রাষ্ট্রের নির্বাহী প্রধানকে বিতর্কিত করেন, কারন কোন মন্ত্রীর অযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন হলে খোদ প্রধান্মন্ত্রীকেই বলা হয়। কারন নিয়োগকর্তা তিনি।

*********************

রাজনীতিবিদরা আমাদের দেশটার আদর্শ ও নৈতিকতার যত অবক্ষয় করেছে তা অন্য  কোন পোজীবীরা করেনি।

দুরনিতির জন্য আমরা দেশের বিভিন্ন পর্যায়ে দোষ দিয় কিন্তু এর মুল দোষী রাজনীতিবিদরা। তা পর্যায়ক্রমে কিছু তুলে ধরবো।

০১. ঘুষ ও দুরনিতির জন্য বেশি দোষী পুলিশ কিন্তু কেন? এই পুলিশকে দিয়ে এই রাজনীতিবিদরা সবচেয়ে বেশি অনৈতিক কাজ করান। যেমন টাকা উত্তলনের জন্য পুলিশকে ব্যাবহার। সমাজের ভালো একজনকে ঘুন বা বিভিন্নভাবে সমাজে নাজেহাল করতে পুলিশকে ব্যাবহার করেন তাঁরা। চাদাবাজির জন্য পুলিশকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যাবহার কিন্তু কেন? রাজনিতির মাঠে প্রতিপক্ষকে বিভিন্নভাবে পরাস্ত করতে ক্ষমতায় থেকে পুলিশকে ব্যাবহার।

বিভিন্ন দপ্তর ও অথিদপ্তরে নিয়োগ বাণিজ্যের জন্য শুধু দোষী করা হয় ঐ দপ্তরের উচ্চ ব্যাক্তিদের কেন ঐ টাকা শুধু তাঁরা নেন না মন্ত্রীরা নেন? মন্ত্রীদের দোষ এই জন্য যে তারাই ঐ মন্ত্রনালয়ের প্রধান।দপ্তরের ব্যাক্তিবর্গ মন্ত্রীদের কথামত কাজ না করলে বহিস্কার না হলে ওএসডি তাঁদের কপালে ঝলে আর তানাহলে এমন জায়গায় বদলি যা তেপান্তরে।

বর্তমানে রাজনিতির ময়দান এতই নোংরা যে তা মনে হয় ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব না। কারন দেশের সব কিছুই নিয়ন্ত্রিত হয় রাজনিতির মাধ্যমে। দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ম্যানেজিং কমিটিতে এত নাদান ব্যাক্তিদের দেয় রাজনৈতিক খমতাবলে যা খুবই ন্যাক্কারজনক। আর বর্তমানে মিডিয়া গুলো মাঝে মাঝে বাড়াবাড়ি করে বেশ।