ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সরকারের ৪বছর পূর্তি উপলক্ষে দেওয়া ভাষণে আরেকবার আওয়ামী লীগকে ভোট দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। ভাল কথা ভোট তিনি চাইতেই পারেন। কিন্তু সংসদীয় গণতন্ত্রে ভোট তো মানুষ তাকে দিবে না। ভোট দিবে এলাকায় যারা কাজ করেছেন তাদের দেখে। এমনকি সংসদ সদস্যদের দেখেও মানুষ অনেক সময় ভোট দেয় না।
ভোট দেয় হয় মার্কা দেখে না হয় তার এলাকায় যে লোকটি ঐ দলের প্রতিনিধিত্ব করে তাকে দেখে।

সম্প্রতি আমার গ্রামের বাড়ীতে মসজিদের জন্য মাননীয় সংসদ সদস্য ২ টন গম বা চাউল বরাদ্ধ দেন। আমাদের ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি মসজিদ কমিটির ২ জনকে ডেকে এনে কিছু কাগজে স্বাক্ষর রেখে বলে দেন পরে টাকা দেওয়া হবে। দিন কয়েক পরে খবর দিয়ে এনে তাদের হাতে ১০ হাজার টাকা ধরিয়ে দেন। পাবলিক খেপলে যা হয়, এ ক্ষেত্রেও হল তাই, ওনারা টাকা নিলেন না। ২ টন গম বা চাউলের মূল্য বাবদ ১০ হাজার টাকা নিয়ে ওনারা এলাকার মানুষ জনের নিকট কী জবাব দিবেন।

তারা গেলেন মাননীয় সংসদ সদস্যের কাছে, উনি তাদের আশ্বস্ত করলেন, বলে দিলেন টাকা পেয়ে যাবেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য এখনও ঐ আওয়ামীলীগ নেতা টাকা দেন নি। এখন বলুন ঐ মানুষগুলো আগামী নির্বাচনে ভোট দেওয়ার সময় কী চিন্তা করে ভোট দিবেন।

শেখ হাসিনার প্রতি আমার ছোট একটা নিবেদন-যারা মসজিদের গম/চাউলের টাকা মেরে দেয় তাদের নিয়ে নির্বাচন করে আমাদের নিকট ভোট চাইবেন না। যদি পারেন গম চোরদের বাদ দেন।

পরিশেষে -ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়ীয়া উপজেলার কুশমাইল টেংগর পাড়া জামে মসজিদের নামে যে প্রকল্পটি আছে সেটি তদন্ত করলেই সারাদেশের গম চোরদের একটা নমুনা পাওয়া যাবে।