ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

আফগানিস্তানে নিহত ব্র্যাক কর্মকর্তার স্ত্রী পারভীন আকতার সহ তার পরিবার নিহতের ঘটনাকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে দাবী করছেন। এ হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে নিহতের স্ত্রী তার পুত্র কন্যাকে নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করার আবেদন জানিয়েছেন।

আফগানিস্তানে খুন হওয়া ব্র্যাক কর্মকর্তা মহিউদ্দিন হেলাল

গতকাল শনিবার বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিক সহ সকলের সামনে নিহতের স্ত্রী পারভীন আকতার, ভাই আফতাব উদ্দিন, মা আমেনা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, মহিউদ্দিন হেলালকে কৃষিবিদ হিসাবে নিয়োগ দিয়ে তাকে দিয়ে জোর পূর্বক ব্র্যাকের মাইক্রোফিন্যান্সের কাজ করানো হয়েছে। সে এতে রাজি ছিলনা বলে আজ তাকে আফগানিস্তানে ব্র্যাকের কর্মকর্তারা পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করেছে।

ঘটনার সময় একই বিছানায় মহিউদ্দিন সহ দু’জন বাংলাদেশী ছিলেন। সন্ত্রাসীরা হামলা চালালে একজন পালিয়ে রক্ষা পায় আর মহিউদ্দিন নিহত হয়। মহিউদ্দিন হেলালের স্ত্রী পারভীন আক্তার কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে আরও বলেন, ৩/৪ মাস পূর্বে আমার স্বামীর উপর সন্ত্রাসীরা হামলা চালালে সে উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের জানানোর পর কেন তার নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি? পরিবারের মাঝে এ হত্যাকাণ্ড নিয়ে সন্দেহ দানা বেধে উঠেছে। নিহত ব্র্যাক কর্মকর্তার স্ত্রী জানান, তার স্বামী নিহত হওয়ার খবর পায় বাংলাদেশের ব্র্যাক কর্মকর্তাদের কাছ থেকে । শুক্রবার আফগানিস্তানের কান্ট্রি ডিরেক্টরের কাছে নিহত ব্র্যাক কর্মকর্তার লাশ ফেরতের কথা জানতে চাইলে তিনি ৭/৮ দিন সময় লাগবে বলে জানান। একাধিকবার মোবাইলে কথা কাটাকাটির পর সে বলে লাশ বাংলাদেশে আসবে ২ দিন পর। আজ রোববার সকালে নিহত মহিউদ্দিন হেলালের লাশ দেশে পৌঁছাবে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। লাশের অপেক্ষায় প্রহর গুনছে পরিবারসহ এলাকাবাসী।

পূর্ববর্তী পোষ্ট: আফগানিস্তানে খুন হওয়া ব্র্যাক কর্মকর্তার গ্রামের বাড়ির খবর