ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

গত ১৩ আগষ্ঠ ২০১২ গ্লোবাল ফান্ডের অর্থায়নে আইসিডিডিআরবির তত্ত্বাবধানে লাইট হাউস কনসোর্টিয়াম পরিচালিত পাবনা ডিআইসির উদ্যোগে পাবনা ডিআইসি কার্যালয়ে প্রজেক্ট ফ্যাসিলিটেশন টিম তথা পিএফটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শাহীন হাসান, ডিআইসির ম্যানেজার কলিম উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অন্যানের মাঝে বক্তব্য রাখেন দর্পনের নির্বহী পরিচালক আ. হামিদ, প্রত্যাশার নির্বহী পরিচালক মোস্তফা বাতেন রুশদি, ট্রাক চালক সমিতির সভাপতি মোঃ শহিদুল্লাহ, পাবনা প্রেস ক্লাবের দপ্তর সম্পাদক আ. রশিদ, পরশীর নির্বাহী পরিচালক মালা সরকার, সুচিতার নির্বহী পরিচালক নাসরিন পারভিন, উদ্দীপনের নির্বহী পরিচালক আলেয়া ইয়াসমিন, কর্মীর নির্বাহী পরিচালক মহিউদ্দিন আকবর মিঠু, প্রদীপ সমাজ কল্যান সংস্থার নির্বহী পরিচালক সাইফুল ইসলাম, মেরিস্টোপসের ক্লিনিক ম্যানেজার আ. গাফ্ফার খান, জেলা কমিউনিটি পুলিশিং কর্মকর্তা এস এম নুরুল হক, ছায়ানীড় নারী উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি শিল্পী খাতুন বন্যা, আইএনএসএর প্রধান সম্পাদক হাসান আলী, শিক্ষক প্রতিনিধি অধ্যাপক আমজাদ হোসেন প্রমুখ।

সভায় বক্তারা এক্সপান্ডিং এইচআইভি/এইডস প্রিভেনশন ফর এমএসএম এণ্ড হিজড়া প্রকল্পকে পাবনায় কিভাবে আরো কাজে লাগানো যায় তার বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোকপাত করেন এবং পাবনার সবকটি উপজেলায় এই প্রকল্পের সম্প্রসারণের দাবি জানান। প্রকল্পের আউটরিচ সুপারভাইজার রেজাউল করিম ও জাহাঙ্গীর আলম প্রকল্পের সেবা সমুহ তুলে ধরে বলেন, পাবনা ডিআইসির উদ্যোগে আউটরিচ পর্যায়ে এপর্যন্ত লক্ষাধিক কনডম, সহস্রাধিক লুব্রিকেন্ট, সহস্রাধিক বিসিসি সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া ডিআইসিতে এমবিবিএস ডাক্তার দারা নিয়মিত ক্লিনিকাল সেশন পরিচালনার মাধ্যমে সহস্রাধিক এসটিআই ও যৌনরোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা কাউন্সিলিং দেয়া হয়েছে। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন লাইট হাউস পাবনা ডিআইসির এম এ মালেক। তিনি জেলার সদর উপজেলায় ৩৭১ জন এমএসএম (সমকামি) ও ১০ জন হিজড়াকে সেবাদানের আওতায় আনার দাবী করেন।