ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

যদি কোন বাচ্চাকে প্রশ্ন করা হয় “ আবর্জনার শহর কোনটি “ ? সিলেটি হলে হয়তো বলে দিতে পারে “সিলট”।

সামান্য বৃষ্টি হলে সিলেট শহরের অন্যতম ব্যস্ত এলাকা বন্দরবাজারের রাস্তা কর্দমান্ত হয়ে যায়। পিচ ঢালা রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে যাওয়া দেশের আর কোন শহরের হয় কিনা জানা নেই। কারণ হলো, শহরের যত ব্যবসায়ী অর্থাৎ দোকানদার সবাই ময়লা আবর্জনা রাস্তা ফেলে দেয়। ডাস্টবিল ব্যবহার করা তাদের অভ্যাসের মধ্যে নেই। শৃধুমাত্র প্রশ্রাব / পায়খানা ছাড়া বাকী সকল বর্জ্য পদার্থ ফেলার জায়গা হলো সামনের রাস্তা।হোটেল / ফাস্ট ফুড দোকানের ময়লা পানিও মাঝ রাস্তায় ফেলা হয়, পুলিশের সামনেই। কেউ কিছু বলে না।ময়লাগুলি গাড়ীর চাকায় পিষ্ট হয়ে পাউডারের রপান্তর হয় এবং তাতে পানি দেয়ার ফলে পাকা রাস্তার উপর প্রলেপ জমা হয়। কোথাও কোথাও প্রলেপ এক ইঞ্চি পরিমাণ পুরো হবে। এ আবর্জনার উপর দিয়েই প্রতিদিন চারবার মোটরসাইকেলে আসা যাওয়া করতে হয়। আধা ইঞ্চি ব্যসার্ধের নাকটি এ আবর্জনার জ্বালা সহ্য করতে পারে না। অবাক হই, যারা এখানে সারাদিন ব্যবসা করে ওরা কিভাবে সহ্য করে? এ রাস্তার উপরই আছে ফাস্ট ফুডের দোকান।জিলেপি, সিংগারা ইত্যাদি বানাচ্চে আর মানুষ খাচ্চে। ময়লা আবর্জনার কোন চিন্তা নেই। মোবাইল কোর্টও এগলি দেখে না। যার এগুলি ঠিক করতে পারবে তারা দেখেও না কিছু করেও না। আর যারা আমনা দেখি আমাদের কিছু করারও নেই। সিলেট শহরের যারা এই লেখাটি পড়বেন, প্লিজ, একটু খেয়ার করবেন এবং প্রতিবাদ করবেন।