ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

 

লেখার যোগ্যতা ও বিষয় যোগ্যতা দুটি ভিন্ন জিনিস। লেখার যোগ্যতা অর্জিত হয় নিয়মিত লেখার মশক ও অনুশীলনের মাধ্যমে আর বিষয় যোগ্যতা অর্জিত হয় অব্যাহত জ্ঞান আহরণের মাধ্যমে। নির্দিষ্ট কোনো বিষয়ে লিখতে বসে লিখতে না পারলে বুঝতে হবে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে জ্ঞানের অভাব, লিখন যোগ্যতার অভাব নয়।

দ্বিতীয় লেখার কলেবর বিচার্য বিষয় নয়। লেখা দশ লাইন হোক আর দশ পৃষ্ঠা সেটাই, যা পাঠকের অন্তরের গভীরে পৌঁছে দেয়। আমাদের চারপাশের পরিবেশ ও প্রকৃতিকে গভীর অনুভব ও পর্যবেক্ষণ করে ছোট ছোট অনেক লেখা তৈরি করা যায়। তরে এর জন্য প্রয়োজন কোমল ও বিগলিত হৃদয় ও পরিচ্ছন্ন ও পরিশুদ্ধ রুচি।

তবে একটি অনুধাবন করে লেখলে প্রথম দিকে লেখা খুব সুন্দর হবে না; তবে অব্যাহত সাহিত্য অধ্যয়ন ও অনুশীলনের মাধ্যমে লেখা ধীরে ধীরে সুন্দর থেকে সুন্দরতর হবে ইনশাআল্লাহ। প্রথম দিকে লেখার গতি বাড়াটাই উদ্দেশ্য। লেখার স্বতঃস্ফূর্ত গতি অবশ্যই কাম্য। প্রথম দিকে সৌন্দর্যচিন্তা থেকে মুক্ত হয়ে স্বাভাবিক লেখাটাই লিখে যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।খেলোয়ারদের মতো নিয়মিত অনুশীলন করতে হবে। স্বাভাবিক গতিতে লেখা তৈরি হওয়ার পর শুরু হবে আসল কাজ।

মূলনীতি লিখতে বসে চিন্তা করা যাবে না। লেখার পর চিন্তা ছাড়া যাবে না।