ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

সুপ্রিয় পাঠক,

রমজানের শুভেচ্ছা। আজ বনানী থানা সাব ইস্পপেক্টর হাসান নামক, পুলিশের কথা বলছি।

ঘটনা-১। ২/৭/২০১৪ইং- সকার আনুমানিক ১০:০০ ঘটিকায় বনানী ১১ রোড থেকে শামীম নামের লোককে সিভিল পোষাকে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে, কখনও তৃপ্তি হোটেল, কখন ডিওএইচএস, কখনও তার ইচ্ছে মত স্থানে ঘুরাতে থাকে। গাড়ী উঠানোর সাথে সাথেই আমার মোবাইল, মানিব্যাগ, আমার কোম্পানীর কাগজপত্র সহ ব্যাগটি হস্তগত করে নেয়। তার পর বলতে থাকে এমন সবকথা যা-৫০,০০০/- (পঞ্চাশ হাজার টাকা) রেডি কর।  (যা হয়তো-পুলিশই বলতে পারে, হয়তো তার মা বাবার হালাল পয়সার শিক্ষা নেই, হয়তো তার পরিবার অনেক নির্যািতন হয়েছে, নতুবা তার মা বাবার জাতটা ভিন্ন বংশের, আসলেই পুলিশ নামক এই নির্যাতন বাহিনির খুব দ্রুতই কুফল ভোগ করবে, যেমন চট্রগ্রামের নিহত রোকনুজ্জামানের ঘটনা, সাভারের ঘটনা- প্রত্যহ ধারাবাহিকতার পরিনাম কিন্তু খুব ভালো নয়, আরাে কত ঘটনা যা লিখে শেষ করা যাবে না ) আর বাকী গুলি না হয় বাদই দিলাম।

থানায় নির্যাতন করার অধিকার কে দিয়েছে? কোন আইনের কত ধারায়, কত উপধারায় আছে যে আসামী স্বীকারক্তি আদায়ে নামে হাতুরি, পলাশ, অন্য উপকরণ সহ প্লাষ্টিকের বেত দিয়ে মারতে হবে?  এই নির্যাতন নিয়মিত প্রতিটি থানায়———————–কিন্তু কেন। “পুলিশের সোর্স নামক” জারজ সন্তানরা নিজে করে মাদক ব্যবসা পরিচালিত করে আর সারাক্ষণ পুলিশের সাথে জারজ সোর্স হিসাবে কাজ করে। আর এই জারজদের জন্যই পুলিশ বাহিনীর কিছু অতি লোভী,অসৎ, চরিত্রহীন, অশিক্ষত, বিবেকহীন, নীতিহারা পুলিশ নানাহ অপকর্ম করছে।

কিন্তু কি কারণে! কি আমার অপরাধ!! কি এমন কাজ করেছি যে, আমাকে ৫০,০০০/- (পঞ্চাশ হাজার) টাকা দিয়ে থানা থেকে মুক্তি হবে?

মোটকথা আমার কোন কথাই কর্ণপাত করেনি এই হাসান পুলিশ। আমাকে থানায় রেখে, আবার সে চলে গেল। কিন্ত্ত রমজান মাস, এই মাসে শক্রুরা ও ইফতার করে, খেতে দেয়। কিন্তু আমি এই বনানী থানার ভিতরে এক গ্লাস পানিও পাইনি। বা কেই জিজ্ঞেস ও করেনি। কিন্তু কেন। আমি চিৎকার করলাম। আমি কি চোর? আমি কি ডাকাত? আমি মাগীবাজ ? না কি সন্ত্রাসী ? না ছিনতাই কারী? না কি মাদক ব্যবসায়ী?  ডিউটি অফিসার হিন্দু ভদ্রলোক উনি আমাকে আমার পরিচিত জনকে ফোন করার সুযােগ দিলেন তাও আবার ১০০/- টাকার বিনিময়ে? বাবার বয়সী পুলিশ সিপাহী কি অভদ্র ভাষায় কথা বলে?? ছি: ছি: প্রথমেই আমি আমার কর্মের মাঝে পরিচিত অবসর প্রাপ্ত একজন বিগ্রেডিয়ার স্যারকে ফোন করে ব্যাপারটা বললাম। উনি হয়তো “হাসান'” পুলিশকে ফোন করেছিল। রাত ১০:০০ দিকে থানা এসে আমাকে বলে, আমার আত্নীয় স্বজনেদর খবর দিতে? সাথে টাকা নিয়ে আসতে?

রাত ১:৩০ মিনিটে আমাকে, থানা থেকে ছাড়া হয়, ৭০০০/- (সাত হাজার) টাকা নিয়ে এবং আমার কোম্পানীর কাগজপত্র, ম্যানিব্যাগ রেখে দেয়, যা তিনদিন পরে আমাকে ফেরত দেওয়া হয়।

শ্রদ্ধেয় পুলিশ আই জি,  পুলিশ কমিশনার, পুলিশ উচ্চ পর্যায়ে কর্মকর্তা বৃন্দ, বলতে পারবেন আমার অপরাধ কি? বা তদন্তই করবেন কি। এর কি কোন প্রতিকার নেই, শুধুই কি টাকার জন্য পুলিশ? নির্যাতনের জন্য পুলিশ? অহেতুক হয়রানির করার জন্য পুলিশ?