ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

একটি সভ্য দেশে আইন কানুন প্রতিষ্ঠিত হয় দেশে সুশাসন নিশ্চিত করার জন্য, দেশের মানুষের মৌলিক অধিকার রক্ষার জন্য। সেই সুত্রে, ব্রিটিশ দের কাছ থেকে উত্তরাধিকার সুত্রে (!) আমরাও কিছু আইন পেয়েছি, যদিও এতগুলো বছর পেরিয়ে এসেও আমরা তার কুব অল্পই পরিবর্তন করতে পেরেছি। সেই উপনইবেশিক শাসক, সুসক দের কাছেই আমাদের সভ্যতার হাতে করি!

ফৌজদারী কার্যবিধি-1898 সালের এই আইন একজন আসামির জামিন বিষয়ে বিভিন্ন শর্ত ও পদ্ধতি আলোচনা করা হয়েছে। এই আইনের ঊনচল্লিশতম অধ্যায় এর ধারা 497 থেকে 502 এ এসব আলোচনা করা হয়েছে।

ধারা – 497(1) অনুযায়ী, ” জামিনের অযোগ্য অপরাধে কোনও ব্যাক্তি গ্রেফতার হইলে বা কোনও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কর্তৃক বিনা ওয়ারেণ্টে আটক থাকিলে বা আদালতে হাজির হইলে বা তাহাকে হাজির করা হইলে, তাহাকে জামিনে মুক্তি প্রদান করা যাইতে পারে, কিন্তু সে মৃত্তুদণ্ডে বা যাবত্‍জীবন কারাদন্ডে দণ্ডনীয় কোনও অপরাধে দোষী বলিয়া বিশ্বাস করিবার যুক্তি সঙ্গত কারণ থাকিলে তাহাকে এইরূপ মুক্তি দেয় যাইবেনা:

তবে শর্ত থাকে যে, আদালত এইরূপ দোষে অভিযুক্ত কোনও ব্যাক্তি ষোল বছরের কম বা স্ত্রীলোক বা পীড়িত বা অক্ষম হইলে তাহাকে জামিনে মুক্তি দিতে পারেন.”

সেক্ষেত্রে আদালত তার বিচারিক এখতিয়ার প্রয়োগ করতে পারেন। সাধারনত জামিন আবেদন গ্রহণ করার ক্ষেত্রে কিছু কিছু নীতি বিবেচনা করা হয়, যেমন, যদি আসামিদের বিরদ্ধে নির্দিষ্ট অভিযোগ না থাকে, অথবা বিচার প্রক্রিয়ায় যদি আসামী অপরাধ করেছে কিনা সেই বিষয়ে সন্দেহের অবতারণা হয় তবে সেই সুবিধা আসামির পক্ষে যাবে (7 BLD (AD)265.) অতহবা আসামি যদি ষোল বছরে কম বয়স্ক অথবা অসুস্থ বা প্রতিবন্ধী হয়, সেক্ষেত্রে আদলত জামিন আবেদন মঞ্জুর করে থাকেন।

তাছাড়াও যদি একি অপরাধের জন্য বিভিন্ন জনকে অভিযুক্ত করা হয় তবে সকল আসামীদের সাথে সমান ব্যাবহার করতে হবে। যদি একজনের জামিন মঞ্জুর করা হয় তবে সবার জামিন মঞ্জুর করা উচিত (35DLR (SC) 279, 43 DLR (AD) 14, 21 BLD (AD) 91, 7 BLD (AD) 91,, 12 BLD 128, 3 BCR 170 SC, 50 DLR 258, 12 BLD 128। বাস্তবে আমরা দেখি 5 জন একি মামলায় 5 জনের জামিন মঞ্জুর হলেও 10 জনের হয়না, বিজ্ঞ আদালতই এই কারণ জানেন.

কিন্তূ বর্তমান প্রেক্ষাপটে আমরা রাজনৈতিক নেতা নেত্রীদের বিভিন্ন কারণে বিভিন্ন ভাবে আদলতে দৌড় দৌড়ি করতে দেখি। আমরা সবাই জানি বিচার বিভাগ স্বাধীন, আসলেই কী স্বাধীন? বিজ্ঞ আদালত এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তি বর্গই ভাল বলতে পারবেন আসলেই সঠিক আইন, আইনের ধরা প্র্যাক্টিস হচ্ছে কিনা।

তাছাড়া ধারা 497 একজন পুলিস অফিসার (থানার তদন্ত) কর্মকর্তাকে ছোটখাট বিষয়ে জামিন দেয়ার ক্ষমতা দেয়। কিন্তু বাস্তবে আমরা দেখতে পাই নেতা নেত্রী রা জামিন এর জন্য হাই কোর্ট, সুপ্রীম কোর্ট পর্যন্ত দৌড়েন!! এইসব মামুলি বিষয় নয়াও যদি সর্বোচ্চ আদালতকে ব্যস্ত থাকতে হয়, দেশে বিচার বিভাগে স্বচ্ছতা, স্বাধীনতা নিশ্চিত হবে কিভাবে?