ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

পত্রিকায় দেখলাম,জনপ্রিয় ঔপন্যাসিক হুমায়ূন আহমেদের প্রকাশিতব্য উপন্যাস “দেয়াল” সম্পর্কে আদালতের রুল জারি হয়েছে। এ ব্যাপারে আমি কোন মন্তব্য করতে চাইনা। কারণ তাতে আবার না আদালত অবমাননা হয়ে যায়।

তবে আমার মনে হয়,আমরা ইতিহাস এবং ইতিহাস আশ্রয়ী উপন্যাসের মধ্যে পার্থক্য করতে ভুল করেছি। মীর মশাররফ হোসেনের অমর উপন্যাস “বিষাদ সিন্ধু” কোন প্রামাণ্য ইতিহাস গ্রন্থ নয়,কারবালার মর্মান্তিক ঘটনাকে উপজীব্য করে রচিত একটি ইতিহাস আশ্রয়ী উপন্যাস মাত্র।তেমনি স্পেন, দেশভাগ ইত্যাদি নিয়ে নসীম হিজাযীর ও অনেক জনপ্রিয় ঐতিহাসিক উপন্যাস আছে। পত্রিকায় প্রকাশিত “দেয়াল” এর দুই অধ্যায় পড়ে আমার মনে হয়েছে এটা ও স্বাধীন বাংলাদেশের সবচেয়ে কলঙ্কিত অধ্যায় ১৫ আগস্টের মর্মান্তিক ও ন্যক্কারজনক ঘটনাকে উপজীব্য করে একটি ঐতিহাসিক উপন্যাস,কোন প্রামাণ্য ইতিহাস গ্রন্থ নয়।

জানিনা হুমায়ূন আহমেদ কি বলবেন। তবে তিনি যা’ই বলুন,আমাদের মনে রাখা উচিত-শিল্পীর কলম ও তুলি কোন সরকারের ভাবাদর্শ প্রতিফলন করেনা।