ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

প্যারিসে, ব্রাসেলসে সন্ত্রাসী হামলার পর সারা বিশ্বে আলোড়ন এবং সহানুভূতির বন্যা বয়ে গিয়েছিলো, আবার, এই সন্ত্রাসী হামলাতেই কাবুলে যখন ২৮ জনের প্রাণ ঝরে গেল, ৩০০ মানুষ আহত হোল, তখন কোনো আলোড়ন নেই। আমার একজন আফগান বন্ধুর (প্রাক্তন কলিগ) ফেসবুক স্ট্যাটাসে এই প্রশ্ন এবং হতাশার সূর। আমি তার উক্তিটি নিচে তুলে দিলাম:

“It is strange, equality does not exist or may be, we are different, a single terrorist attack in Kabul, left 28 killed and more than 300 injured today, it is not one day, we are talking about 38 years now… I remember how we reacted when Paris and Brussels were attacked. Terrorism does not differentiate amongst us but we are…”

সন্ত্রাস (টেররিজম) জাত -পাত মানছে বলে ত মনে হয়না। সকলকেই মারছে। কিন্তু বিশ্ব মিডিয়া সন্ত্রাসের জাত- পাত বিচার করছে। আমরাও ডিফারেনসিয়েট করছি। ভাবখানা এই, যেন ওখানে এটাই স্বাভাবিক।

পশ্চিমা বিশ্বের প্রচার মাধ্যমের বৈষম্য মূলক নীতি আজ সবার কাছে পরিষ্কার। সামাজিক মাধ্যম গুলোতে এর ভুরি ভুরি উদাহারন আছে। তাদের বর্নবাদী চেহারা আর লুকিয়ে রাখতে পারছেনা। তথাপি আমরা নিশ্চুপ অথবা দ্বিধান্বিত। এখানেও পলিটিক্স চলে। এখানেও “রেসিজম” কাজ করছে। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সবাই এক সুরে কথা বলতে পারছেনা। এটাই দুঃখজনক বাস্তবতা।