ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

আজ বিশ্ব মা দিবস। শুধুমাত্র একটি বিষয়ের মধ্যেই কোন ভেজাল নেই সেটা হলো মায়ের প্রতি সন্তানের ভালোবাসা। তা একেবারেই অকৃত্রিম। কিন্তু একজন মায়ের তার সন্তানকে নিয়ে আহাজারি কে দেখবে ! প্রচুর সম্ভাবনার এই দেশে একটি শিশুর মানসিক ও শারীরিক বিকাশের জন্য কোন ধরণের পর্যাপ্ততা কি রয়েছে ! আগের দু’টিতে স্কুল ও খাবার নিয়ে বলতে চেষ্টা করেছি। আমি চেষ্টা করেছি আমার নিজের ভোগান্তির কথাটিই তুলে ধরতে।

আমি এবং আমার বৌ দু’জনেই দু’কোম্পানীর চাকর, আমাদের ‘ন বছরের একটি কণ্যা সন্তান রয়েছে। অফিসে থাকলে বাচ্চাকে একটি নিশ্চিন্ত শেল্টারে রাখার প্রচেষ্টায় স্কুল থেকে অনেক দুরে আমাদের আবাস। সকালে ঘুম থেকে উঠে বাচ্চাকে নিয়ে যখন রাস্তায় বের হই তখন পুরো রাস্তা জুড়েই দেখি শুধু গাড়ি আর গাড়ি ঠাঁই দাঁড়িয়ে আছে। ১৫ মিনিটের রাস্তা অনেক সময়ই এক ঘন্টা লেগে যায়। অত:পর যখন স্কুলে পৌছাই তখন কি বাচ্চার পড়াশোনার আগ্রহ থাকে ! এমনও হয়েছে স্কুলে ক্লাশ শুরু হয়ে গিয়েছে, মাঝ পথ থেকে বাচ্চাকে নিয়ে ফিরে এসেছি বাসায়।

মা দিবসে শুধুই মায়েদের নয় আমাদের সকলের প্রত্যাশা নিদেন পক্ষে বাচ্চাদের বা আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মের পড়াশুনার পথের সকল প্রতিবন্ধকতা দূর হোক।

চলবে…