ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

জমায়েত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার ৭১’র মানবতা বিরোধী অপরাধের বিচারের রায় ঘোষনা করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ বিষয়ক ট্রাইব্যুনাল-২। রায়ে তার বিরুদ্ধে আনীত ৬টি অভিযোগের ৫টি প্রমাণিত এবং এ সব অপরাধের জন্য দুইটিতে যাবজ্জীবন এবং ৩টিতে ১৫ বছর করে জেল দেওয়া হয়েছে।

এখন এই রায়ে বাংলার স্বাধীনতা সংগ্রামে আত্মহুতি দেওয়া লাখো শহীদের এবং অগুনিত নারীর ইজ্জতের মুল্য কাদের মোল্লাকে হাজার বার ফাঁসিতে ঝুলিয়েও পরিশোধ করা সম্ভব নয়। কিন্তু ন্যূনতম শান্তনা পাওয়ার মত রায়টি ঘোষনা না হওয়ায় আমরা আশাহত। আমাদের বর্তমান সরকার স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি হিসাবে দাবী করে আর এই সরকারের কাছে এই রায় স্বপ্নেও প্রত্যাশা করা ছিল কঠিন। তা হলে এর পিছনে কারন কী?

যারা যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবি করছে এনিয়ে বিভিন্ন ফ্রন্টে কাজ করছে তাদের সবার মৃত্যু দণ্ড চাইতেই পারি। যদি শত শত হত্যা নির্যাতনের অভিযোগ প্রমাণিত হবার পরেও ফাঁসির রায় না হয় তবে বিচার দাবিকারীদের ফাঁসি হওয়া উচিৎ।

তা হলে ইদানীংকালের জমাত শিবিরের তান্ডব কাজে এসেছে, কারন তাদের ভয়ে সরকার এই গা বাঁচানো রায় দিয়ে সরকারের নির্বাচনী ওয়াদা রক্ষা করে জনগনকে যে আইওয়াশ করার প্রয়াস করছেন তা আর যাই হোক বাংলার স্বাধীনতা প্রিয় কোটি মানষ কখনই মেনে নেবে না। আমরা এই রায় কখনও মানতে পারি না যেমনটি পারেনি মামলার বাদি।

ছবি-ইন্টারনেট।