ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

 
675798789-
.
প্রোগ্রেসিভ ব্লেড ট্রেডিশন নিয়ে আমি ভীষণ চিন্তিত। আজকের শিশু কালকে সাজাবে সোনার বাংলাদেশ। কোমল মনের প্রদীপের মতো মেধাবী কিশোর কিশোরী মনোযোগ দিয়ে পড়াশোনা করে, জ্ঞান অর্জন করে নিজের বুকে দেশটাকে ধারণ করে ওরা আলোকিত হবে, আলো ছড়াবে, হবে আলোর মানুষ, দেশটা হবে আলোকিত মানুষে ভরা, থাকবে না অন্ধকার।
.
কিন্তু এ কী! আমার দেশের প্রদীপগুলো অন্ধকারে আলো ছড়ায় না কেন? কেন ওরা আরো ঘন করছে আঁধার! কেন ওদের শরীরে অশ্লীলতার ক্ষতচিহ্ন? কাধে ঝুলানো যে ব্যাগটাতে কথা ছিলো থাকবে জ্ঞানে ভরা বই, সেখানে আজকে দিয়াশলাই, অশ্লীলতায় ভরা মোবাইল, ঘুমের ট্যাবলেট, মদের গেলাস! উজ্জল চেহারায় থাকতো জ্ঞানের ছটা! কেন সে চেহারা আজ মলিন? কেন ফুলের মতো সে ঠোঁটে নিকোটিন? আমার আশার আলোর প্রদীপগুলোর এ কী হলো?
 .
বগুড়া শহরের কোথাও যখন কিশোর কিশোরীদের হাসিখুশি দেখি, আমার মন ভরে ওঠে আনন্দে; মনে মনে ভাবি ভালো আছে আমার প্রদীপগুলো, স্বপ্ন জাগে; হাসিখুশি এই কোমলমতী যেন সুখী দেশের প্রতীক। এদের নিয়ে একদিন এই দেশ আলোকিত হবে। হঠাৎ যখন শুনি উড়ুক্কু প্রেমের জালের প্রোগ্রেসিভ ব্লেড ট্রেডিশনে ছেলেটাকে অথবা মেয়েটাকে কেউ ছুরিকাঘাত করে চলে গেছে, রক্তে ভিজেছে পথের ধুলো। উত্তপ্ত টকটকে লাল রক্তে সিক্ত মটিতে আচমকা আমার স্বপ্নের কিছু বাতি নিভে যায়।
 .
হাসিখুশি, মায়াময় চেহারার অল্প বয়সের মেয়েটাকে দেখে আমি ভেবেছিলাম, একদিন আমি মরে যাবো নিশ্চয়; মৃত্যুর পর যেন মায়াময়ী এই মেয়ের গর্ভে আবারো জন্ম হয় আমার। যখন টিভিতে দেখি আমার দ্বিতীয় জন্মের মা কি যেন লিখে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে। আমি আমার মা হারাই, মায়াবতী এই মেয়েটার গর্ভে আমার জন্ম হবে না; আরেকবার পৃথিবীর আলো দেখবার স্বপ্ন বৃথা হয়।
.
আমার আলোর প্রদীপগুলো একে অপরের আলো কেড়ে নিচ্ছে, হারিয়ে ফেলছে নিজের আলো। একে একে নিভে যাচ্ছে আমার প্রদীপ, আমাদের প্রদীপ, বাংলাদেশের প্রদীপ, আলোকিত দেশের স্বপ্নগুলো পায়ে পিশে চলছে অন্ধকারের পথে। কিছু ছাই পড়ে আছে শুধু। তবুও এ ছাইয়ের ভিতরে আমি খুঁজি অমূল্য রতন। আমার ছোট ভাইবোনদের নিয়ে, আলোর প্রদীপগুলো নিয়ে আমার অনেক স্বপ্ন, আমি আমার স্বপ্নগুলো রক্ষা করবো, আমার নিজের জীবন দিয়ে হলেও।
 .
এই সোনার বাংলার আগামী এভাবে ধ্বংস হতে পারে না, সোনালী আলো ছড়ানো প্রদীপগুলো এভাবে নিভে যেতে পারে না, এভাবে নিভে যেতে দেবো না। আজকের ছেলে-মেয়ে এদেশের সম্পদ, ওরা ফুলের কলি, কালকে অপরূপ ফুল হবে নিশ্চয়। কলিতেই যেন ঝড়ে না পড়ে ফুলের স্বপ্ন, নিষ্পাপ এই কলিগুলো প্রোগ্রেসিভ ব্লেড ট্রেডিশনে ঝড়ে যেতে পারে না, ঝড়তে দিবো না। যত্নে কলিগুলো একদিন ফুল হবেই। প্রদীপগুলো আলো ছড়াবেই, এদেশে অন্ধকার আর থাকবে না।
 .
আমার বন্ধুদের বলি, আমার ছোট ভাই বোনদের বলি, আমার আলোর প্রদীপদের বলি; তোমাদের নিয়ে আমার কিছু স্বপ্ন আছে, আমার স্বপ্ন দেখায় তোমাদের যায় আসে না জানি। মনে রেখো, এই দেশটাও কিন্তু তোমাদের নিয়ে স্বপ্ন দ্যাখে, অন্তত এই দেশটার স্বপ্ন ভেঙে দিও না। তোমাদের নিয়ে অনেক স্বপ্ন জেগে আছে বাংলার বুকে। এই দেশ তোমরা যেন আলোকিত করতে পারো তার সব ব্যাবস্থা করে গেছেন বাংলার বীর সন্তানেরা, নিজেদের জীবন দিয়ে, তাজা রক্ত দিয়ে লাল সবুজের স্বাধীন বাংলাদেশ তোমাদের উপহার দিয়েছেন তোমরা আলোকিত হবে বলে, দেশটাকে আলোকিত করবে বলে। কবরে ঘুমিয়ে বাংলার বীর সন্তানেরা তাকিয়ে আছে তোমাদের দিকে, তোমরা তাদের হতাশ করো না। তোমরা একদিন আলোকিত হয়ে আলোকিত করবে এই দেশ, সারা পৃথিবী অবাক বিস্ময়ে তাকিয়ে থাকবে তোমাদের দিকে, বাংলাদেশের দিকে। বুক ভরে শ্বাস নিয়ে কেউ গেয়ে উঠবে, “সারা বিশ্বের বিস্ময় তুমি আমার অহংকার!” গানটা গাইতে দিও।
 .
তোমরা এমন কিছু করো না যাতে তোমাদের বুকের ভিতরে আলোর প্রদীপটা নিভে যায়। তোমরা নিজের আলোর প্রদীপ জ্বেলে রাখো, আলোকিত মানুষ হও, তবে নিজে আলোকিত হতে কখনো কারো আলো নিভিয়ে দিও না। সবাই মিলে আমরা আলোকিত দেশ গড়বো। আমি জানি আমরা পারবো, বাঙালি বীরের জাতি। আমাদের রক্তে মিশে আছে সূর্যের মতো আলোকিত হবার যথেষ্ট শক্তি। জয় হোক আমাদের সকলের।
.
তোমাদের জন্য আমার অনেক শুভকামনা রইলো; রইলো ভালোবাসা নিরন্তর।
 .
নাভিদ ইবনে সাজিদ নির্জন, ব্লগার, অনলাইন এক্টিভিস্ট।