ক্যাটেগরিঃ কৃষি, ফিচার পোস্ট, ফিচার পোস্ট আর্কাইভ

‘নবান্ন’ শব্দের অর্থ  ‘নতুন অন্ন’। নবান্ন উৎসব হল নতুন আমন ধান কাটার পর সেই ধান থেকে প্রস্তুত চালের প্রথম রান্না উপলক্ষে আয়োজিত উৎসব। সাধারণত অগ্রহায়ণ মাসে আমন ধান পাকার পর এই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার দেবডাঙ্গা গ্রামেও ছিল নবান্নের ব্যস্ততা।

জমি থেকে ধান কেটে ঘরে নিয়ে আসছেন একজন কৃষক

 

 

 

ধান থেকে ময়লা  আলাদা করতে ধানগুলো কুলা দিয়ে ঝাড়া হচ্ছে

কুলা দিয়ে ছেড়ে ধান থেকে ময়লা আর চিটা ধান আলাদা করা হচ্ছে

বগুড়া শহরের নতুন দিনের একটি মেয়ে নবান্নের সাজে সেজেছে

ধান থেকে চাল হবে। নতুন চাল থেকে হবে ভাত। উড়বে সাদা ভাতের ধোঁয়া। ঢেঁকিতে চাল গুড়ো করে বানানো হবে আটা। আর সেই আটা থেকে বানানো হবে নানা রকম পিঠা, দুধ পিঠা, তেল পিঠা, ভাপা পিঠা।

নতুন চালের তৈরি খাদ্যসামগ্রী কাককে নিবেদন করা নবান্নের একটি বিশেষ লৌকিক প্রথা। লোকবিশ্বাস অনুযায়ী, কাকের মাধ্যমে ওই খাদ্য মৃতের আত্মার কাছে পৌঁছে যায়। এই নৈবেদ্যকে বলে  ‘কাকবলী’।