ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আসন হিসেবে পরিচিত বগুড়া-৬ (সদর) আসনে কর্মিসভা করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম।

শুক্রবার সকাল ১১টায় বগুড়া শহরের শহীদ টিটু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত কর্মিসভায়  তিনি বলেন, “ধানের শীষের প্রার্থীকে জেতানো ছাড়া সামনে কোনো পথ খোলা নেই। … বিএনপির প্রতিষ্ঠানের জন্মভিটা বগুড়া। খালেদা জিয়া এ বগুড়ার পুত্রবধূ। প্রতিটি নির্বাচনে তিনি এখানে প্রার্থী হন। ধানের শীষ নিয়ে দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে ছুটে বেড়ান। এবার সরকার তাকে অন্যায়ভাবে ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দিয়ে, ফরমায়েশি সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রেখেছে। সরকার বুঝতে পেরেছে খালেদা জিয়া বাইরে থাকলে তাদের কোথাও জেতার সম্ভাবনা নেই ।”

কর্মী-সমর্থকদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী ফখরুল বলেন,  “আমাদের সামনে এখন কঠিন চ্যালেঞ্জ। বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। নেত্রী কারাগারে। নেতা দেশের বাইরে। আমি এখানে ধানের শীষের প্রার্থী হয়ে আসিনি। নেত্রীর প্রতিনিধি হয়ে এসেছি। নেত্রী কারাগারে অসুস্থ অবস্থায় দুঃসহ জীবনযাপন করছেন। তাকে মুক্ত করতে হলে আপনাদের সামনে কোনো পথ খোলা নেই।”

 

প্রশাসন, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সব সরকারের হাতে থাকায় সারা দেশে সুষ্ঠু নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নেই বলে অভিযোগ করেন  মির্জা ফখরুল।

“সরকার আর চায় না যে নির্বাচন হোক। কারণ, তারা জেনে গেছে, জনগণ তাদের সঙ্গে নেই। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তাদের খুঁজে পাওয়া যাবে না।”

তিনি বলেন,  “সারাদেশে ধানের শীষের কর্মী-সমর্থকদের হামলা করে, মামলা করে অরাজক পরিস্থিত তৈরি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলাম। তিনি কথা দিয়েছিলেন, তফসিল ঘোষণার পর অন্যায়ভাবে কাউকে গ্রেপ্তার করা হবে না। তিনি কথা রাখেননি। এখন সারা দেশে বিএনপির প্রার্থী ও কর্মীদের মাঠে নামতে দেওয়া হচ্ছে না। আমার ওপর হামলা হয়েছে। অন্যান্য প্রার্থীর ওপর হামলা লেগেই আছে। আজকেও ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেনসহ অন্যান্য নেতাদের ওপর হামলা হয়েছে।”

নিজেদের মধ্যে ‘কোন্দল’ থাকলে কোনো আসনে জেতার সম্ভাবনা নেই বলেও কর্মীদের হুঁশিয়ার করেন তিনি।

ভিআইপি আসন বলে পরিচিত বগুড়া-৬ আসনে  মহাজোট থেকে লড়ছেন জাতীয় পার্টির নুরুল ইসলাম ওমর।

 

ট্যাগঃ:

মন্তব্য ০ পঠিত