ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

 

রেলগাড়ি নামক যানবাহনটি হরতাল-অবরোধে মানুষের যে কত নিরাপদ বাহন তা বলার অপেক্ষা রাখেনা।

যাই হোক! যশোরের উদ্দেশে ঢাকা হতে এই হরতাল-অবরোধে রওনা দেবার জন্য গেলাম টিকেট ক্রয় করতে ষ্টেশনে।

আমিঃ একটা এসি টিকেট দেন।

কাউন্টারঃ টিকেট নাই ।

আমিঃ আমি অমুকের কাছে শুনলাম টিকেট আছে ।

কাউন্টারঃঅমুকের সাথে কথা হইল ।

আমিঃ (টিকেট পাইলাম) দাম কত?

কাউন্টারঃ টিকেটেলিখা আছে।

আমিঃজি । ১৬১০ টাকা দিয়া ২ টা টিকেট নিলাম ।

পরক্ষণেই একজনের সঙ্গে দেখা যে ১১০০ টাকা দিয়া একই টিকেট কিনছে।

এতক্ষণেই বুঝলাম টিকেট কেন নাই।

যাইহোক! ষ্টেশনে গেলাম সন্ধ্যা ৬.৩০টায়, গাড়ি আসলো ৮.৪৫ এ। উঠে দেখলাম না হলেও ১০টা সিট খালি আছে ।

তাদের আর কী! লস যাবে সরকার এর । তাদের পকেটে টাকা না গেলে টিকেট দেবেনা, তাদের সহজ হিসাব। বাহ! গাড়ি ভিতর তো টিকেট কাটা লোক এর চেয়ে টিকেট ছাড়া লোক এর সংখ্যা ১ গুণ । টিটি মহাদয় লালেলাল।

এবার আসি ট্রেন থেকে নামার পরের হিসাবটা নিয়ে।

সাধারণত, ২জন দায়িত্ব থাকে টিকেট দ্যাখার, কিন্তু এ কি বৃষ্টির মত পিয়ন থেকে মাস্তের, ছেলে থেকে বুড়া সবাই ছড়িয়ে পরছে বাহ! কি সুন্দর !

now you see নামে একটা ছবি দেখছিলাম, ছবিতে এক জাদুতে সব টাকা উড়িয়ে দেয়। সব লোকজন টাকা নিয়া যাই, আর আমদের এইখানে কার দোষ দিবেন ভাইবোনরা?

দোষ সরকারের!!!!!!!!

দেশ স্বাধীন হয়ছে,আমরা স্বাধীন হয়নি এখনও মাতাল আছি।

মা তুমি বলে দাও কবে মানুষের মত মানুষ হব? কবে আর বুঝব?