ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

এখনও এমন কোন সুস্থ গণতান্ত্রিক দেশ আছে কিনা জানা নাই যেখানে মানুষ বাইরে যাই হাতের মুঠোয় জীবন নিয়ে ।

জানা নেই তার অপরাধ ,কত অসহায় আমরা । এমন কত কথা লিখে চলছে এদেশের কলম নিয়া যুদ্ধ করা কোটি মানুষ । কিন্তু কে শোনে কার কথা ??

শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড ,ছোট বেলা থেকে সবাই পড়ছি, কেওবা না বুঝে কেওবা বুঝে ।

এদেশের শিক্ষার প্রয়োজনে চালু হয় বেসরকারি শিক্ষা ব্যবস্থা । লাখ লাখ ছাত্র-ছাত্রী বুয়েট,ঢাবি চান্স না পেয়ে বেছে নেন উন্নত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ।

এসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হোস্টেল ত দূরে থাক ক্যাম্পাস প্রযন্ত নাই, ভাড়াটিয়া মত চলছে খুড়ে খুঁড়ে ।

আবার নর্থ-সাউথ , ইস্ট-ওয়েস্ট,নিজেস্ব ক্যাম্পাস করলেও এটি বহুতল ভবন ছাড়া অন্যকিছু বলা চলে কিনা সেটা আপনারাই সরেজবিন এ পরিদর্শন করেই দেখুন !!

আর মাসাল্লাহ এআইইউবি বাবাজি ২০১৪ মাঝামাঝি থেকে এখন ২০১৫ করার কথা(ওয়েবসাইট থেকে পাওয়া),কিন্তু সরেজবিন পরিদর্শন ২০৫০ সালে ও অনিশ্চয়তা !!

ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয় মুল ক্যাম্পাস বিল্ডিং খানা আড়ং থেকে লিজ নেওয়া,আড়ং যদিও তাদের তদিও ভাড়া নিয়া চলছে

এইউএসটি কথা না বলাই ভাল কারন তারা পাবলিক এর মতই চলে ।

এখন এই সব ছাত্র-ছাত্রী আসে কোথা থেকে, কেও আসে নারাণয়গঞ্জ থেকে, কেও গাজীপুর থেকে , অনেকে অনেক স্থান থেকে আসে কেও কাছে, কেও দূরে ।

এদের বিশ্ববিদ্যালয় কতৃক কোনও পরিবহণ ব্যবস্থা আছে!!

হাসালেন ভাই 😉

হরতাল মধ্যে ও ওইসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস চলছিলো । কিন্তু ছাত্র-ছাত্রীরা আন্দোলনে গেলো ক্লাস না করার জন্য, তাদের সমস্যা হল হরতাল এ আসতে পারে না ।

পরক্ষনেই ইউজিসি মিটিং হইল,সিধান্ত হইল ক্লাস হবে। তারপর জো হুকুম তো কাজ ।

ইউনাইটেড বিশ্ববিদ্যালয় সিধান্ত নিল, যারা ক্লাস করতে চাই তারা করবা, আর যারা না করবা তাদের সেমিষ্টার গ্যাপ কিন্তু তোমরা টাকা ফেরত পাবা । ইউনাইটেড তোমাকে স্যালুট । সুন্দর সিধান্ত ।

অন্য সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ফলো করতে পারত কিন্তু টাকা নেশা বড় খারাপ ।

হরতাল তো আজীবন থাকবে তাহলে কি আজীবন বন্ধ থাকবে ।

না বিগ ব্রাদার, এটা সম্ভব নয় ।

ইউজিসি মিটিং শেষে বুয়েট উপাচার্য বলেন বুয়েটের শিক্ষক ও শিক্ষাথীদের পরিবহনকারী বাসে অগ্নিনিবাপনের ব্যবস্থা করেছেন ,বাসে হেলপার একজনের জায়গায় ২জন দিয়াছেন । তাদের ২ ঘণ্টার প্রশিক্ষণও দেওয়া হইয়াছে।

কিন্তু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মালিকগণ,উপাচার্যগণ কি এমন করেছেন শিক্ষক ও শিক্ষাথীদের জন্য, বলতে পারেন । কে দায়ি ?? তাদের তো সরকার না দিক,শিক্ষাথীদের কাছ থেকে গলা কেটে নিচ্ছছে ।

ওহে মাননীয় ইউজিসি আপনি শুনছেন, এই ছাত্র-ছাত্রী কাছ থেকে ৮-১০ লাখ টাকা দিয়া কি করে শুধু বিএমডব্লিউ কেনে না অন্য কিছু করে । মিটিং আবার বসান শুনুন !!

আর কত, কত শিক্ষা ব্যবসা দেখবো এদেশে ……………………

শিক্ষামন্ত্রী প্রতিদিনে বলেন, বন্ধ করো শিক্ষা ব্যবসা ।।

এত ক্ষমতা ওদের আপনাদের ও দমিয়ে রাখে,এত ক্ষমতা ।

ইউজিসি মহাদয় আপনারা একবার আপনারা দেখুন, হিসাব নিন। সুশীলের মোড়কে কুশিল , শিক্ষার বদলে ব্যবসা এটা কি পারেন না থামাতে !!!!!!!!!!!!!!

slide