স্কোপস সাহেবের বানরের গল্প

গতকাল ছিলো ১০ জুলাই। কোন বিখ্যাত দিন কি? আমরা অনেকেই জানি না। ১৯২৫ সালের এই দিনে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের ছোট্ট শহর ডেটনে একটি মামলার শুনানি শুরু হয়, যেটিকে পরবর্তীতে “শতাব্দীর অন্যতম সেরা মামলা” হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং এটিই আমেরিকার প্রথম মামলা, যেটা সরাসরি রেডিওতে সম্প্রচার করা হয়। মামলাটির একটি পোশাকি নাম আছে “টেনেসি… Read more »

সবার এই ভালোবাসা আমি সইবো কেমনে?

(১) বেশ কিছুদিন আগের কথা। মধ্যবয়স্ক একজন রোগীনি ভর্তি হলেন আমাদের ওয়ার্ডে, ব্রেইন টিউমারের রোগী। দুই দিন পর অপারেশনের তারিখ ঠিক করা হলো। মনে নেই, কী কারণে অপারেশনের আগে তার সাথে আমার খুব একটি কথা হয় নি। একজন ডাক্তার হিসেবে শুধু তিনি অপারেশনের জন্য ফিট আছেন কি না, তাই দেখেছিলাম। মানুষ হিসেবে তার কাছে আসতে… Read more »

বাংলা নববর্ষে টাইটানিক অর্কেষ্ট্রার গল্প

সবাই তাকে ‘জক’ (Jock) নামে চিনে, আসল নাম জন ল’ হিউম। বয়স মাত্র ২১ বছর। খুব ভালো ভায়োলিন বাজাতে পারেন, ইতিমধ্যেই অনেক সুনাম হয়েছে। এর আগে পাঁচ বার সমুদ্রযাত্রায় গিয়েছিলেন। এবারো যাবেন। এবারের যাওয়াটা অবশ্য এক বিশাল ব্যাপার। বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো জাহাজ ‘আরএমএস টাইটানিক’-এর প্রথম সমুদ্রযাত্রার অর্কেষ্ট্রা দলের সদস্য হিসেবে তিনি যাবেন। ১০ এপ্রিল, ১৯১২… Read more »

হঠাৎ গর্তজীবী আমি এবং ডয়চে ভেলের শ্রেষ্ঠ বাংলা ব্লগ

ব্যক্তিগত কিছু কারণে গর্তে চলে গিয়েছিলাম। কেউ কোনোভাবে আমাকে ট্রেস করতে পারছিলো না। ব্লগের প্রতি অসম্ভব এক টান থাকা সত্ত্বেও আমি সময় দিতে পারছিলাম না। কিন্তু আজ আমি হঠাৎ করেই গর্ত থেকে মাথা তুলে বের হলাম। নিজের দুটি খবরের কারণে! শেষেরটা আগে বলি- আমার একটা প্রমোশন হয়েছে, অতি আকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। গত দুয়েক মাস ধরে আশায়… Read more »

লিবিয়ার পথে পথেঃ (৬)

গারিয়ান টিচিং হাসপাতালের ডেপুটি ডিরেক্টর ডাঃ নুরুদ্দিন একজন বয়স্ক এবং মোটাসোটা মানুষ। প্রথম দেখাতেই তাঁকে আমার ভালো লেগে যায়। অনেকখানি বন্ধুবৎসল মনে হয়। এই বিদেশ – বিভুয়ে এসে, যেখানে কোনো বাংলাদেশী ডাক্তার আর সিস্টার নেই, একজন বন্ধুবৎসল মানুষ পাওয়াটাই তখন খুব ভাগ্যের ব্যাপার। ডাঃ নুরুদ্দিন চমৎকার ইংরেজী বলতে পারেন। তিনি নিজেই নিজের পরিচয় দিলেন, ‘শিশু… Read more »

লিবিয়ার পথে পথেঃ (৫)

ত্রিপোলী এয়ারপোর্টে এক বাংলাদেশি ডাক্তারের সাথে পরিচয় হলো। উনি ত্রিপোলিতেই থাকেন। খবর পেয়েছিলেন এক দল দেশী ডাক্তার এবং সিস্টার আসবে, তাই সময় করে এয়ারপোর্টে এসেছেন। শুনে খুব ভালো লাগলো। উনার কাছ থেকেই জানলাম গারিয়ান শহর সম্পর্কে। আবহাওয়াগতভাবে লিবিয়ার সবচেয়ে আরামপ্রদ অঞ্চল। পাহাড়ের উপরে শহরটি। যে হাসপাতালে আমাকে দেওয়া হয়েছে সেখানে দুই বছর আগে উনি ছিলেন,… Read more »

লিবিয়ার পথে পথেঃ (৪)

বিমানে ভ্রমন যতোই আরামদায়ক হয়, সেটা যদি হয় এগার ঘন্টার ভ্রমন, কোনোরকম যাত্রা বিরতি ছাড়াই, তাও আবার ইকোনমি ক্লাসে, কোনোভাবেই স্বাচ্ছন্দপূর্ণ হবার কথা নয়। এর উপরে আবার যদি সুন্দরী লিবিয়ান বিমানবালারা ইংরেজী কম জানে, তাহলে তো আরো সমস্যা। তাও সুন্দরী বিমানবালাদের ভাঙ্গা ভাঙ্গা ইংরেজীতে বলে কিছু সাহায্য পাওয়া যায়, কিন্তু যখন সুন্দর বিমানবালাদের কাছে এক… Read more »

বইমেলা ডায়েরিঃ ১০/১২/২০১২ ও ১১/০২/২০১২ (মোড়ক উন্মোচন মিস!)

১০ তারিখ সকাল থেকেই আমি প্রস্তুত ঢাকায় আসার জন্য। আবদুর রাজ্জাক শিপন ভাইয়ার “সোনামুখী সুঁইয়ে রুপোলী সুতো” র মোড়ক উন্মোচন হবে বিকেল পাঁচটায় আর ১১ তারিখে হবে “চতুর্মাত্রিক” ব্লগ সংকলনের। তাই ঢাকায় আসার জন্য এতো অস্থির হয়ে ছিলাম। বিধাতা অলক্ষ্যে মুচকি হাসছিলেন বোধহয়। হাসপাতাল থেকে বের হবার সময়ই এক রোগী আসলো – ২৮ বছরের সদ্য… Read more »

লিবিয়ার পথে পথে (৩)

ত্রিপোলি যাবার জন্য ফ্লাইট ঠিক করে দিয়েছিলো লিবিয়ান সরকারের বাংলাদেশী এজেন্ট। তারা প্রথম ফ্লাইটের জন্য আফ্রিকিয়া এয়ারলাইন্সের টিকেট কেটেছিলো। প্রথম ব্যাচে আমরা প্রায় তিরিশ জনের মতো ডাক্তার এবং সত্তর জনের মতো নার্স একসাথে গিয়েছিলাম। আমাদের ফ্লাইট ছিলো রাতের বেলা। আফ্রিকিয়া এয়ারলাইন্সে ল্যাগেজ বহন করার ক্ষেত্রে আমরা এক সুবিধা পেয়েছিলাম, আর সেটা হলো প্রতিজনে প্রায় ষাট… Read more »

লিবিয়ার পথে পথেঃ ২

আমার জন্য লিবিয়ায় যাওয়াটাই ছিলো এক অদ্ভুত ব্যাপার। একদিন পত্রিকায় লিবিয়ান স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের অধীনে ডাক্তার নেবার বিজ্ঞপ্তি দেখে অনেকটা খেয়াল বশেই আমি আর লিসা ঢাকার হোটেল ইশা খাঁতে ভাইভা দিতে গিয়েছিলাম। ভাইভা নেবার জন্য লিবিয়ান স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের তিনজন কর্মকর্তাও ঢাকায় এসেছিলেন। ভাইভাতে মেডিকেল জ্ঞান সংক্রান্ত তেমন কোনো প্রশ্ন করা হলো না। তারা আমাদের কাগজপত্র দেখলেন।… Read more »