ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

স্বাধীনতার বাঙালীর প্রাণের নেতা, মহান নেতা শেখ মুজিব….!! তাই বাংলাদেশের রাজনীতি অঙ্গনে মুজিব কন্যা শেখ হাসিনাকে অন্য নজরে দেখে এ দেশের সাধারণ জনগন…যে দেহে বইছে মুজিবের রক্ত সেই মানুষটি অন্তত দেশকে নিয়ে ভাববে…?? কিন্তু না ..?? বড়ই অভাক হলাম আমার ভাল লাগার নেতার মুখের সাম্প্র্তিক কিছু কথা শুনে ….! তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ,মুজিব কন্যা শেখ হাসিনা। এই ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী যা যা বলেছেন তার মুখের কথা আর আমাদের মত সাধারণ মানুষের সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনার তুলনামূলক কিছু বিবরণ——–

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- এইবার ঈদে বিদ্যুৎ ,গ্যাস ও পানির সমস্যা হয়নি…!! পক্ষান্তরে যা হয়েছে-
সবাইকে নিয়ে ইফতার করতে বসে ছিলাম…. বিদ্যুৎ চলে গেছে….!! রাতে সেহরি খেতে বসে ছিলাম ,আমরা খাবার মুখে দিব কি? বিদ্যুৎ আবার নাই….!!সারাদিনে গোসল করার জন্যে দাঁড়িয়ে ছিলাম। কখন পানি আসবে সেই অপেক্ষায় বসে থাকতে থাকতে কখন যে ঘুমিয়ে গেছি ঠিক মনে ছিল না….!!এই ঘটনা যে শুধু আমার ক্ষেত্রে ঘটেছে সেটা ভাবলে ভুল হবে…!! এটা আমাদের মত সাধারণ মানুষের নিত্যনৈমত্তিক ঘটনার পথিকৃৎ….! তাহলে প্রধানমন্ত্রী যা বলেছেন তার সাথে বাস্তবের মিল কোথায়…??
প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- আমরা জিনিসপত্রের দাম কমাতে সক্ষম হয়েছি—এখন আমরা বলি মাননীয় মন্ত্রি ?? আমরা সারা রমজান জুড়ে গরু, খাসি, মুরগির মাংস খাওয়া থেকে বিরত থেকেছি ….!!

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- আমরা জানতে পেরেছি, এবার প্রচুর ব্যবসা বাণিজ্য হয়েছে।”
আমরা দেখাছি ব্যাবসা ভাল না হওয়ায় আমাদের এলাকার প্র্ধান একটি দোকান ৫০% ছাড় দিয়েও লাভের মুখ দেখতে পারে নি…!
প্রধানমন্ত্রী বলেছেন-এইবার ঈদে আমি এতোটুকু দাবি করতে পারি যে, সকলে উৎসাহের সাথে ঈদ উদযাপন করছে। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল ছিল।
মাননীয় মন্ত্রি আমরাও দাবি করতে পারি- ঈদের ২ দিন আগেও ঢাকার সাভার থেকে ৫ জন অপহরণ হতে দেখেছি!! একই দিনে নারায়নগঞ্জ জেলায় শাহিন নামের যুবককে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে…! ১০ লাখ টাকার জন্যে মা , মেয়েকে হত্যা করেছে..!এগুলো কি মিথ্যা??

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “এগুলো যদি আমরা করতে না পারতাম, তাহলে তো কেউ ছেড়ে কথা বলত না।” রাস্তাঘাটের পরিস্থিতিও ভাল ছিল দাবি করেছেন—!!
মাননীয় মন্ত্রিকে আমরাও বলতে পারি—–মাননীয় মন্ত্রি, ঈদের সময় মানুষের ঘরে ফেরার আনন্দ যাত্রায় তাদের দুর্ভোগ ও তাদের ছেড়ে কথা বলে নি!! কিংবা রুপগন্জের শ্রমিক বিক্ষোভ ও ঐ এলাকার জনদুর্ভোগ কে বাড়াতেও শ্রমিকরা ছেড়ে কথা বলে নি কিন্তু..!! ৯ টার ট্রেন ছেড়েছে ১২ টায়…!!না না এটা মনে হয় তেমন কোন সমস্যা না….!বাস রাস্তায় চলবে কি ?? উল্টো বাস কাত হয়ে পরে যায়…..!! মাননীয় মন্ত্রি তারপরেও বলবেন যে সারা দেশের আইন-শৃংখলা তথা, সার্বিক পরিস্থিতি ভাল ছিলো…..? মাননীয় মন্ত্রি , স্বাধীনতার পক্ষের এক শক্তিশালী দলের শক্তিমান কোন নেতার মুখে এইসব কথা মানায় না।!! যদি কিছুই না করতে পারেন ??

না করেন ..! আমরা সাধারণ জনগণ তো এমনিতেই সবকিছুই মেনে নিয়েছি…….!!! তাহলে কেন এই মিথ্যে আশ্বাস ?? আমরা তো মেনেই নিয়েছি আমরা সবার খেলার পুতুল.. সবাই শুধুই খেলা করবে…! আর খেলা শেষে ভুলে যাবে পুতুল কোথায় ফেলল…!! তবে আমি এখন আশাবাদী যে, জানি একদিন আমরা মুক্ত হবো । আরে…?? যুদ্ধ করে দেশকে স্বাধীন করতে যে বাঙালীরা পিছপা হয় নি , তাদের জন্যে এসব তো কিছুই না…! দরকার শুধু বঙ্গবন্ধু আর জিয়ার মতো কিছু দেশ নেতা….! দরকার ভাসানীর মতো কিছু দেশপ্রেমিক..তবেই আমরা দেখতে পারি সুন্দর একটি বাংলার….!!

তবেই হয়তো বা ফিরে পাবো শহীদ সেই ৩০ লক্ষ বাঙালীকে…. !! কিংবা নতুন রূপে ভাসানীকে…! অথবা ধানের শীষের শহীদ জিয়া….! জীবিত হতে পারেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও ….! শিখল ভাঙ্গতে পারবো এইসব পরাধীনতা থেকে।!আমরা কখন দেখবো সেই প্র্ভাত যার আলোয় উদ্ভাসিত হবে পুরো বাংলাদেশ…?? যার আলো থেকে বঞ্চিত হবে না এই দেশের কোন মানুষ ?? তবে পরক্ষণেই মন খারাপ হয়ে যায় । যখন মনে পরে আশাহত সেই শ্রমিকের কন্ঠস্বর —“ভাই আমার সব চাইতে বড় অপরাধ আমি এই দেশে জন্মেছি !! ”