ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

প্রায় ১৬ কোটি জনতার দেশ, এই প্রিয় বাংলাদেশ। সুজলা, সুফলা, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর এমন একটি দেশ বিশ্বের বুকে খুঁজে পাওয়া প্রায় দুঃসাধ্য ব্যাপার। আমাদের আছে নিজস্ব ইতিহাস, সংস্কৃতি, রক্ত দিয়ে কেনা বাংলা ভাষা ও স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব। জন্মলগ্ন থেকে ৫৬ হাজার বর্গমাইলের এ দেশে শান্তি, সম্প্রীতি, সৌহার্দ্য, একতা, পারস্পরিক সৌজন্যবোধ, আন্তরিকতা কোনটিরই অভাব ছিল না । গোলা ভরা ধান, গোয়াল ভরা গবাদি পশু, মাঠের পর মাঠ সবুজের বিস্তৃতি, খাল-বিল-পুকুর ভরা মাছ ছিল আবহমান বাংলার চিরচেনা প্রতিচ্ছবি।

সময়ের বিবর্তনে বাংলার সেই সুদিন আজ হার মেনেছে রাজনীতিবিদ নামক কিছু মনুষ্য জীবের কাছে। মাত্র ১৫টি বছর আগে ফিরে গেলেও এমন নৈতিক অধঃপতন খুঁজে পাওয়া যাবে না, যা বর্তমানে বিদ্যমান। রাজনীতি নামক একটি শব্দকে কেন্দ্র করে সমগ্র বাংলা জুড়ে বইছে অশান্তির দাবানল। এই রাজনীতিই বাংলার বহু পিতা-মাতাকে করেছে সন্তানহারা, স্বজনকে করেছে স্বজনহারা, সন্তানকে করেছে পিতাহারা। যে রাজনৈতিক তৎপরতা দিয়ে অর্জিত হয়েছিলো বাংলার স্বাধীনতা আজ সেই তৎপরতা পরিনত হয়েছে অপ তৎপরতায়। আমার মতো অনেকেই মনে প্রানে স্বীকার করেন বা বিশ্বাস করেন যে, একটি সুগঠিত রাষ্ট্র কে সঠিকভাবে পরিচালনা করতে রাজনীতির প্রয়োজনীয়তা অনেক হলেও আমরা তো এমন রাজনীতি চাইনি। বাংলার সাধারন জনগণ তো বিলাসবহুল জীবনযাপন চায় নি, তাঁরা আজীবন চেয়েছে দু’বেলা দুমুঠো খেয়ে শান্তিতে জীবন যাপন করতে। তাঁরা চেয়েছে সুখে দুঃখে আপনজনের সান্নিধ্য থাকতে। কিন্তু রাজনীতি নামক এই কালো বেড়াজালে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে জড়িয়ে বাংলার মানুষ আজ দিশেহারা। আজ বাংলার মানুষের আস্থার স্থলটুকু পর্যন্ত জীবিত নেই। সরকার আসে, সরকার যায় কিন্তু পালাবদলের ক্ষমতায় দেশের অভ্যন্তরীণ স্বস্তির দেখা পাওয়া বড় দ্বায়। ১৬ কোটি জনতার বৃহদাংশ এই রাজনীতি নামক শব্দটির আশে পাশেও নেই কিন্তু তাঁরাই বেশী ভুক্তভোগী। জাতীয় নির্বাচনের সময় ভোট দিতে হয় বলে তাঁরা ভোট দেয় বলেই প্রতীয়মান। জাতীয় নির্বাচন তাঁদের জন্য এক প্রকারের উৎসবেরও বটে। নির্বাচন পরবর্তী অস্থিতিশীলতা, দলে দলে বিবাদ, সংঘর্ষ, রাজনৈতিক অস্থিরতা ছাড়া তাঁদের ভালো কিছুই উপহার দিতে পারেন না রাজনীতিবিদরা।

আমি কোন ব্যাক্তি বা দলকে এর দায়ে অভিযুক্ত বলব না কিন্তু তাঁদের প্রতি বিনীত প্রশ্ন রইল রাজনীতির নামে এ কোন নীতির চর্চা বিদ্যমান এই দেশে? পারস্পরিক আস্থা বা বিশ্বাস, যাই বলুন না কেন তার সিকিভাগও নেই আপনাদের মধ্যে। আর শান্তি-সম্প্রীতি সে তো মরুভূমির মরীচিকা যার পেছনে হন্যে ছুটে বেড়ায় কোটি কোটি জনতা।