ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

 

বর্তমানে বাংলাদেশের অন্যান্য জেলা শহরের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ শাহর হলো উন্নয়নের মডেল। সম্মানিতা মেয়র আইভীর উন্নয়নের ছোঁয়ায় কোথাও প্যাঁক-কাঁদার রাস্তা নেই, প্রতিটি বাড়ির দরজা পর্যন্ত পোঁছে গেছে পাকা সড়ক। এটা নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য একটা আনন্দের বিষয়, সেই দিক দিয়ে আমরা গর্বিত। তার জন্যই এবার নাসিক নির্বাচনে নারায়াণগঞ্জবাসী সম্মানিতা মেয়র আইভীকে দলমত নির্বিশেষে সবাই বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেছেন। কিন্তু আমাদের দুঃখ শুধু একটাই, সেটা হলো যানজট।

img_20161116_123220
শহরের যানজট এখন আনাচে-কানাচে সবখানে সব জায়গায়, ছোট একটা শহর নারায়ণগঞ্জ। যাকে প্রাচ্যের ডান্ডী নামে সবাই চিনে ও জানে, কোন একসময় সারাদেশের ব্যবসার কেন্দ্রবিন্দু ছিল এই নারায়ণগঞ্জ। কিন্তু শহরের প্রাণকেন্দ্রের কোথাও কোন ফুটওভার ব্রিজ নেই বা তৈরি হওয়ার কোন সম্ভাবনাও দেখছিনা। স্বাধীনতা পরবর্তী সময় হতে ২০০৭ সাল পর্যন্ত শুধু একটা ফুটওভার ব্রিজ ছিল নারায়ণগঞ্জে, সেটা ছিল নারায়ণগঞ্জ রেলস্টেশন পারাপারের জন্য। বর্তমানে সেই প্রাচীতম ফুটওভার ব্রিজটিও নেই, কোথায় যে ছিল, তারও কোন নিশানা খুঁজে পাওয়া যায় না।

img_20161029_143321
দিন পরিবর্তন হচ্ছে, শহরে মানুষ বাড়ছে, গাড়ি বাড়ছে, যার কারণে যানজটও চরম আকার ধারণ করছে। যখন গাড়ির যট লেগে যায়, তখন এই যানজটের মধ্যেই পথচারীদের পথ চলতে হয় গাড়ীর চিপা-চাপা দিয়ে। যার কারণে সময় সময় ঘটে যায় দুর্ঘটনা। যদি আমাদের নারায়ণগঞ্জ হতে চিটাগাং রোড যেতে হয়, তবে কয়েকটা মোড় অতিক্রম করে পোঁছাতে হয় চিটিগাং রোড।

img_20161029_143156
সেই মোড়গুলো হচ্ছে- চাষাড়ার মোড়, মিশনপাড়া মোড়, নিউ মেট্রো সিনেমা হল মোড়, বরফকল মোড়, কিল্লারপুল মোড়, নবীগঞ্জ গুদারাঘাট মোড়, আইটিই স্কুল মোড়, হাজীগঞ্জ মাজার মোড়, পাঠানটুলী মোড়, চৌধুরীবাড়ী মোড়, তারপর বার্মাস্ট্যান্ড মোড় ও এসও মোড়।

সামনে অারো বহু মোড় সহ আরো অনেক মোড় পেড়িয়ে চিটাগাং রোড ডেমরা যেতে হয় নারায়ণগঞ্জবাসীদের। যাই হোক যারা গাড়ী দিয়ে যাচ্ছে বা যাতায়াত করছে, তারা জায়গায় জায়গায় যানজটের অসহনীয় যন্ত্রণা সহ্য করেই যাচ্ছে বহু কষ্ট করে। এই আশা-যাওয়ার মাঝখানেই গোদনাইল চৌধুরীবাড়ী বাসস্ট্যান্ড। এই চৌধুরীবাড়ী বাসস্ট্যান্ড হলো একটা চৌরাস্তার মোড়, একদিকে চিত্তরঞ্জ গুদারাঘাট টু তাঁতখানা হয়ে ফতুল্লা ক্রিকেট স্টেডিয়াম। অপর দিকে নারায়াণগঞ্জ ডেমরা ভায়া চিটাগাং রোড।

বর্তমানে এই এলাকাটি নারায়ণগঞ্জ সিটি ১০নং ওয়ার্ড, জনসংখ্যার দিক থেকে ছোটখাটো একটা শহরের সমান। এই জনবহুল এলাকার প্রধান চৌরাস্তার মোড় হলো এই চৌধুরীবাড়ি বাসস্ট্যান্ড। এই মোড় দিয়ে দৈনিক হাজার হাজার নারী-পুরুষ সহ স্কুল পড়ুয়া কোমলমতি ছোট শিশুরাও গাড়ীর চিপা-চাপা দিয়ে যাতায়াত করে কোন ট্রাফিক ব্যবস্থা ছাড়াই, একেবারে নিজ দায়িত্বে। এই জনবহুল এলাকার চৌরাস্তায় কোন ট্রাফিক ব্যবস্থা নেই, যার কারণে সময় সময় ঘটে যায় দূর্ঘটনা।

স্কুলপড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য এই মোড়টিতে একটি ফুটওভার ব্রিজ অথবা স্থায়ীভাবে ট্রাফিক ব্যবস্থা একান্ত জরুরী। এসব জনবহুল রাস্তার মোড়ে কোন ট্রাফিক ব্যবস্থা নেই, প্রশাসনও নীরব ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। আবার ট্রাফিক চোখে পড়ে তখন, যখন কোন সংসদীয় মন্ত্রী বা এমপিদের আগমন ঘটে তখন। ঢাকা শহরে যানজটের মাঝে যেসব ফেরিওয়ালারা ফেরি করে জীবিকা নির্বাহ করে, গাড়ীর চিপা-চাপা দিয়ে চলার সাহসিকতা একমাত্র তারাই জানে, অন্য কোন মানুষ নয়।

ওইসব ফেরিওয়ালারাও এই গোদনাইল চৌধুরীবাড়ি বাসস্ট্যান্ড মোড় পায়ে হেঁটে পার হতে পারবেনা, ভয় পাবে। অথচ দেখার কেউ নেই, সবাই যেন চোখ থাকতেও অন্ধ সেজে বসে আছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষও এগিয়ে আসেনা দেখেও দেখেনা। এমনি করে ছোট-ছোট ছেলে মেয়েরা স্কুলে আশা-যাওয়া করে সবসময়, এভাবে চলতে চলতে, যেকোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে সেই সময়টা আসন্ন, তখন এর দায়দায়িত্ব নেবে কে? দিন যাচ্ছে, মানুষ বাড়ছে, বসতি বাড়ছে গাড়ী বাড়ছ। কিন্তু যেভাবে গাড়ী বাড়ছে, সেভাবে কিন্তু রাস্তা বাড়ছে না, দিন-দিন রাস্তার প্রস্থ আরো কমছে।

প্রশ্ন করা যায় যে, কীভাবে রাস্তার প্রস্থ কমছে? রাস্তার দু’পাশে বিন্দুমাত্র জায়গা বর্তমানে খালি নেই, সব খালি জায়গা ই কানায় কানায় ভরা। মানে হলো বেদখল হয়ে গেছে রাস্তার পাশের সব খালি জায়গা। তাহলে দিনের সাথে তাল মিলিয়ে গাড়ী বাড়ছে মানুষ বাড়ছে আর এই স্বল্প প্রস্থ রাস্তা দিয়েই চলছে সবকিছু, যানজটের মূল কারণটা এখানেই। তবু কোন সমস্যা ছিল না, যদি অন্তত একজন করে ট্রাফিক পুলিশের ব্যবস্থা থাকতো। এই গোদনাইল চৌধুরীবাড়ি বাস্ট্যান্ড মোড়ের যানজটের একটা ভিডিও ইতিমধ্যে ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছে, যা দেখলে লোকে বলবে যে, একটা নামকরা এলাকার বাস স্ট্যান্ড মোড়ের এই অবস্থা! তাহলে শহরের অবস্থা কেমন হবে? দেখলেই বুঝতে পারবেন আশা করি।

এমতাবস্থায় এলাকার জন সাধারণের একটাই চাওয়া, নারায়ণগঞ্জ শহরে কোথাও যখন ফুটওভার ব্রিজ নেই, তাহলে আমাদের গোদনাইলেও স্বপ্নের ফুটওভার ব্রিজের দরকার নেই। আমরা এই গোদনাইল চৌধুরীবাড়ির চৌরাস্তার মোড়ে চাই শুধু স্থায়ীভাবে একটা ট্রাফিক ব্যবস্থা। যেন আমাদের সন্তানরা নির্বিঘ্নে এই চৌরাস্তা পারাপার হতে পারে। যেন কোন দুর্ঘটনার শিকার না হয়।