ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

প্রতিবছরের ন্যায় এবারও নারায়ানগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন সাবেক ২নং ঢাকেশ্বরী কটন মিলস্‌, বর্তমান ইব্রাহিম টেক্সটাইল মিলস্‌ এর দেব মন্দিরে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ২৪ প্রহর ব্যাপী(৩ দিন) শ্রীশ্রী তারকব্রহ্ম হরিনাম মহাযজ্ঞ ৮ম বার্ষিকী মহোৎসব ।

পৃথিবীর সকল জীবের কল্যাণ ও শান্তি কামনায় মঙ্গল ঘট স্থাপনের মধ্য দিয়ে গত ১১ জানুয়ারি ২০১৬ ইং রোজ বুধবার শুরু হয় সিদ্ধিরগঞ্জ থানাদিন গোদনাইলের ঐতিয্যবাহী দেব মন্দিরে হরিনাম সংকীর্তন । অনুষ্ঠান চলছিল ১২ই জানুয়ারি বৃস্পতিবার ব্রাহ্মমুহূর্ত হইতে ১৪ই জানুয়ারি শনিবার অহোরাত্র পর্যন্ত ২৪ প্রহর (৩ দিন)। ১৫ই জানুয়ারি রবিবার ব্রাহ্মনুহূর্তে নগর কীর্তনান্তে নামযজ্ঞ সমাপন ও দ্বিপ্রহরে শ্রীশ্রী মহাপ্রভুর ভোগরাগ অন্তে মহাপ্রসাদ বিতরণ ।
IMG_20151124_115012

সাবেক ২নং ঢাকেশ্বরী কটন মিলস্ বর্তমান ইব্রাহিম টেক্সটাইল মিলস্ দেব মন্দির ৷

উক্ত হরিনাম সংকীর্তনে মধুর হরিনাম পরিবাশনায় ছিলেন ।
কৃষ্ণ কাঙ্গাল সম্প্রদায় ……………সাতক্ষীরা ।
মা বাসন্তী সম্প্রদায়……………কুমিল্লা ।
বৃন্দা সখী সম্প্রদায়……………কিশোরগঞ্জ ।
শ্রীহরি সম্প্রদায়………………নীলফামারী ।
ব্রজ বালক সম্প্রদায়…………দিনাজপুর ।
নব জাগরণ সম্প্রদায়………গোদনাইল, নারায়নগঞ্জ

“হরে কৃষ্ণ হরে কৃষ্ণ কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে
হরে রাম হরে রাম রাম রাম হরে হরে”

অনুবাদ :- ‘কৃষ্ণ’ নামের অর্থ হচ্ছে সর্বাকর্ষক, ‘রাম’ নামটির অর্থ হচ্ছে সর্ব মনোরম এবং ‘হর’ হলো ভগবানের অন্তরঙ্গা শক্তিকে সম্বোধন । সুতরাং এ মহামন্ত্রের অর্থ হচ্ছে “হে সর্বাকর্ষক, সর্ব মনোরম, হে ভগবানের অন্তরঙ্গা শক্তি, কৃপা করে আমাকে তোমার ভক্তিযুক্ত সেবায় নিয়োজিত কর।‘’ সূত্রঃ ভগবত দর্শন :- ৩৩
IMG_20170114_170226

হরিনাম অনুষ্ঠানে দেব মন্দিরের সজ্জিত গেইট ৷

হরিভক্তি পরায়নেষু,
শ্রীশ্রীগৌরাঙ্গ মহাপ্রভু ধরাধামে অবতীর্ণ হইয়া অদ্ধকারে নিমজ্জিত হিন্দু সমাজকে মহানাম বিলাইয়া আলোর পথ দেখাইয়াছেন । জগতকে প্রেমের বন্যায় আপ্লূত করিয়া জীবের কল্যাণের নির্দেশনা প্রধান করিয়াছেন । তাঁর নির্দেশিত পথে চলার সংকল্প ও তাঁর আদর্শকে জীবনে প্রতিফলিত করার লক্ষ্যে প্রতিবছর গোদনাইল দেব মন্দির প্রাঙ্গণে এই হরিনাম সংকীর্তনের আয়োজন।
IMG_20170114_170342

হরিনাম শ্রবণ করছেন আগত বক্তবৃন্দ

উৎসবের প্রথম দিন থেকেই প্রচুর ভক্তবৃন্দের সমাগম ঘটে এই সংকীর্তনে, হরিনাম চলাকালীন প্রতিদিন দুপুর ও রাতে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবার জন্য প্রসাদের ব্যবস্থা থাকে, যা চোখে পড়ার মত । প্রসাদ গ্রহণেরও আলাদা সুবিশাল স্থান থাকে । প্রসাদ পরিবেশনের জন্য মন্দির কমিটি হতে ১৫/২০ জন লোক দেয়া হয়ে থাকে, যাতে প্রসাদ বিতরণে কোন প্রকার বিঘ্ন না ঘটে । থাকে মন্দিরের নিজস্ব জেনারেটর, থাকে নিজস্ব নিরাপত্তা প্রহরী ।
IMG_20170114_170322

মধুর হরিনাম পরিবেশন করছেন আগত দলের শিল্পীরা ৷

সংকীর্তন শুরু হওয়ার দিন থেকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা থেকে দেয়া হয় পুলিশ, তাঁরা থাকে বিশেষ নজরদারিতে, যাতে কোন প্রকার অঘটন না ঘটে । এভাবে ১২ই জানুয়ারি হতে শুরু হয়ে তিনদিন হরিনাম সংকীর্তনের পর গত ১৫ই জানুয়ারি এক বিশেষ প্রার্থণার মধ্য দিয়ে শেষ হয় দেব মন্দিরের শ্রীশ্রী তারকব্রহ্ম হরিনাম মহাযজ্ঞ নাম সংকীর্তন । ইতিমধ্যে এই সংকীর্তনের একটা ভিডিও আপলোড করা হয়েছে ৷

মন্দিরের সার্বিক সহযোগিতায় :- জনাব, মঞ্জুরুল আলম ৷
ব্যবস্থাপনা পরিচালক,ইব্রাহিম কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস্, গোদনাইল নারায়ণগঞ্জ।

মন্দির পরিচালনা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি :- শ্রী মদন চন্দ্র দাস।

সাধারণ সম্পাদক :- শ্রী মাধব চন্দ্র দাস।