ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

“কর্মকর্তা থেকে কর্মচারী হওয়ার আনন্দ”
সোনালী ব্যাংকের দুই মহান কর্মকর্তা শ্রম আদালতে মামলা করে পুনরায় কর্মচারীতে রুপান্তরিত হয়েছেন। মহান এই নেতারা শ্রমিকের ঘামের গন্ধ ভুলতে পারেন নি। তারা গতকাল আবার সংবর্ধনাও নিয়েছেন।ঘটনা ঘটেছে মতিঝিলের সোনালী ব্যাংকের কার্যালয়ে।

খবরটা পড়ে আমার এক ভাই বললেন, “এরা তো ট্রড ইউনিয়নের সুবিধা আর চাঁদাবাজির জন্যেই এ কান্ড করেছেন। আর ব্যাংকের মধ্যে সংবর্ধনা হয় কেমনে? ”

আমি বললাম, ” এসব বলতে নাই, তেনারা কষ্ট পাবেন।”

ভাই আবার আক্ষেপ করে বললেন,” আগে মানুষ চুরি করলে, দূর্ণীতি করলে সমাজে কোণঠাসা হয়ে থাকতো। তার ফ্যামিলিরে সবাই কইতো ঘুষখোরের………।
আর এখনতো দেখি উল্টা। মানুষের কি লজ্জা নাই!”

এইবার না হেসে পারলাম না।

“ভাই, লজ্জা, শরম এই সব জিনিস আমরা ডিউটি ফ্রিতে বিদেশে এক্সপোর্ট করে দিছি অনেকদিন হলো।”