ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

সিলেটে পিকনিকে গিয়ে খালেদা জিয়া বলেছিলেন “এই জালিম সরকারের পতন না গঠিয়ে ঘরে ফিরব না” কিন্তূ খুব অবাক হলাম খালেদা ঘরে ফিরলেন। যা হউক এইটা নিয়ে আর কথা বলতে চাই না ধরে নিলাম অনেক গুলো কথার মাঝে হয়তো উনি নেতা কর্মীদের মনোভাব বুঝার জন্য মুখ ফসকে এই কথা টা বলেছিলেন।

গতকাল আবার সেই পিকনিক তা ও জিয়াউর রহমান আর পবিত্র জর্মমভূমি তে যাত্রা বিরতি শেষ হবে আজকে চাপাই ন.গঞ্জে আমি ওই পথে পা বাড়াব না। যে কথা গুলো বলতে চাইছিলাম আজকে বাংলাদেশ এর মানুষ আরও নতুন কিছু ফালতু কথার সাথে পরিচিত হইল।

যেমন: “আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের দল নয়। তারা রণাঙ্গনে নয়, যুদ্ধের সময় এপার-ওপার করেছেন। অন্য দিকে বিএনপিই প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের দল। এ দলের নেতা রণাঙ্গনে যুদ্ধ করেছেন”

“বিএনপি ক্ষমতায় গেলে কর্মসংস্থান, বিনিয়োগের পরিবেশ সৃষ্টি, আইনশৃঙ্খলার উন্নয়ন করা হবে”

“সরকার সর্বক্ষেত্রে ব্যর্থ হয়েছে। তাদের হাতে দেশের স্বাধীনতা ও জনগণ আর নিরাপদ নয়। তাই আজ সরকারের বিরুদ্ধে জনগণ জেগে উঠেছে। তাদের পতন ও বিদায়ের জন্য ভবিষ্যতে এভাবে জনগণকে ঢাকার অভিমুখে এগোতে হবে।”

‘২১ অগাস্টের গ্রেনেড মামলা মিথ্যা’

“নতুন প্রজন্মের প্রতি বলেন, “যতদিন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকবে, ততদিন তোমাদের কিছুই হবে। আমরা ক্ষমতায় গেলে তোমাদের কর্মসংস্থানসহ সব কিছুই করবো। কারণ আমরা বিশ্বাস করি, এই তরুণ সমাজ আমাদের জন্য সম্ভাবনাময় একটি সস্পদ। এদের গড়ে তুলতে হবে।”

“ওএসডি কর্মকর্তাদের বলতে চাই- আপনারা হতাশ হবেন না। কারণ এই সরকারের দিন শেষ হয়ে গেছে। বর্তমান সরকারের আমলে যারা ওএসডি হয়েছেন, আমরা ক্ষমতায় আসলে তাদের চাকরিতে পুনর্বহাল করব।”

উপরের এই কথাগুলো গতকাল সারাদিন বাংলাদেশের মানুষকে হজম করতে হয়েছে। এখন আমার প্রশ্ন হইল এইগুলো কি সব সত্তি কথা ? যেহেতু উনি বাংলাদেশ এর প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এখন বিরুধি দলীয় নেত্রী উনার মুখ থেকে এইসব কথা জাতি কিভাবে নিবে ?