ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

ইদানিং পদ্মা সেতু নিয়ে অনেক আলোচনা, তর্ক বিতর্ক, বিচার বিশ্লেষণ চলছে, যেই প্রকল্প এখনও শুরুই হয় নাই। কিন্তু যে প্রকল্প গুলো চলছে সেগুলোর দিকে আমরা একটু দৃষ্টি দেই।
যার মধ্যে প্রধান হল গুলিস্তান যাত্রাবাড়ী ফ্লাইওভার। এই ফ্লাইওভার তৈরির মূল শর্ত ছিল ঢাকায় জ্যাম কমানো। কিন্তু চলমান এই প্রকল্প বর্তমানে মানুষের অবর্ণনীয় দুর্ভোগের কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

পুরো ঢাকা শহরের এক তৃতীয়াংশ মানুষ বসবাস করে ঢাকার এই দক্ষিন পার্শে। যারা প্রতিদিন এই রাস্তাটি ব্যবহার করে কর্মস্থলে যাতায়াত করে।কিন্তু এই প্রকল্পের কাজ যেন মনে হয় এই এলাকার বাসিন্দাদের জন্য মহা দুর্ভোগ বয়ে এনেছে, তার উপর বিদ্যুতের লাইনের কাজ, বিটিসিএল এর লাইনের কাজ এবং বর্ষাকাল যা ওই রাস্তাটি কে নরকে পরিনত করেছে।

আজকে কাজ সেরে মতিঝিল থেকে বাসায় ফেরার সময়, দেখি কোন যানবাহন নেই, বাস নেই, রিক্শুরু যাবে না গেলেও ভাড়া তিনগুন যা আমার পক্ষে বহন করা অসম্ভব।কিছুক্ষন পর একটা বাস আসল, দেখি সম্পূর্ণ বাস ভর্তি মানুষ এবং কিছু মানুষ বাদুরঝোলা হয়ে ঝুলে আছে দরজার কাছে, ভেতরে ঢোকার উপায় নেই।তখন নিজেকে বড় কাপুরুশ মনে হল, অতিরিক্ত সাহস দেখিয়ে বাসের দরজায় ঝুলে যাবার সাহস হল না, কিন্তু কিছু মানুষ এভাবেই ঝুলে উঠে গেলো বাসে।

অগত্যা আর কি করা শুরু করলাম হাটা,কিন্তু হেটে যে আসব তারও উপায় নেই, রাস্তার ধারে এক হাঁটু কাঁদা,রাস্তার কিছু অংশ পানিতে ডুবে আছে যেখানে পানির পরিমান প্রায় গোড়ালি পর্যন্ত।
তাও এদিক ওদিক করে হেটে হেটে আমার পোস্তগোলার বাসায় পৌঁছাইলাম।

এ হচ্ছে আমাদের প্রতিদিনের দুর্ভোগ। যার কোন শেষ নাই।

আমার মত হাজার হাজার মানুষ এই রাস্তাটা দিয়ে যাতায়াত করে র তাদের কে পোহাতে হয় সীমাহীন দুর্ভোগ।

রাস্তার এই দুরাবস্থার কারনে জ্যাম তো প্রতিদিনের দৃশ্য,তার উপর রাস্তা কাটা, গর্ত, বৃষ্টিতে পানি জমে তৈরি করছে মরন ফাঁদ, যে ফাঁদে শিকার হচ্ছেন কোন না কোন পথচারি।
তারপর ও সরকারের কোন পদক্ষেপ নেই এই রাস্তা টি মেরামত করার, যাতে অন্তত সাধারণ পথচারী, যাত্রীরা একটু ভাল ভাবে যাতায়াত করতে পারে।
এই সব অবস্থা দেখে মনে হয়……………………

এই দুর্ভোগের শেষ কোথায়??? হায় রে আমার ডিজিটাল বাংলাদেশ