ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

কোরান বনাম শরিয়ত গ্রন্থখানি ম. জামিলুল বাসার কর্তৃক কোরানের আলোকে লিখিত। গ্রন্থটিতে প্রায় প্রত্যেকটি ভাবধারার স্বপক্ষে ছুরার নাম ও আয়াত নম্বর দেয়া আছে। নিতান্ত প্রয়োজনে ক্ষেত্র বিশেষে একই আয়াত ও ভাবধারা একাধিকবার এমনকি বহুবার উদ্ধৃত করা হয়েছে এবং এর ভাব ও ভাষা এমন সহজ ও সরলভাবে বর্ণিত হয়েছে যে, নিতান্ত সাধারণ লোকেরও বুঝতে যেন কষ্ট না হয়।

গ্রন্থটির মূল বক্তব্য কোরানের আলোকে মানবধর্ম সংস্কার। মানুষ বলতে একই পৃথিবীতে একক জাতি। এদের জন্মের সূত্র এক, পরিণতিও এক এবং স্রষ্টাও একক ও অভিbgন্ন। অতএব জন্ম মৃত্যুর মাঝে একাধিক ধর্মবিশ্বাস অথবা একই ধর্মে মতবিরোধ কিছুতেই যুক্তিসঙ্গত নয়। একক মানবগোষ্ঠীর, একক ধর্মই মানবতা বা শান্তিবাদ (ঔঁম বা ইসলাম)। এর প্রধান স্তম্ভ: বিশ্বস্থতা, সততা, সমতা, একতা, পরিশ্রম ও ত্যাগ অতঃপর স্রষ্টায় বিশ্বাসী এবং এই ৬টি স্তম্ভ দাঁড় করাতে হবে অবিশ্বাস, মিথ্যা, লোভ, হিংসা, মোহ ও অহঙ্কারের ও শিরকের বুক ভেদ করে। বস্ত্ত-অবস্ত্ত, সকল জীব তথা সকল মানুষের অন্তরেই আল্লাহর অবস্থান; বিশ্বাস-অবিশ্বাসের মুল কেন্দ্রবিন্দু স্ব-স্ব অন্তর; অতএব দেশ বা ভাষার পার্থক্য ছাড়া অমুক ধর্ম, ভিন্ন ধর্ম ইত্যাদি বলে পার্থক্য করার সুযোগ নেই! সকল ঐশী গ্রন্থই একক আল্লাহ থেকে, অভিনড়ব এবং একই মানবতার উদ্দেশ্যে। কিন্তু সকল কালের গোঁড়া ধর্মান্ধগণ নবি-রাছুল, অবতার-দেবতাদের নামে শরিয়ত রচনা করে একক ধর্মে মতভেদ সৃষ্টি করে স্ব-গোষ্ঠির রক্তের হোলি খেলায় মত্ত রয়েছে। প্রত্যেক জাতির উচিত দু’নম্বরী ধর্মগ্রন্থ ছেড়ে স্ব-স্ব মূল ঐশী গ্রন্থে ফিরে আসা এবং আসলেই প্রমাণ পাবে যে, মানব ধর্মে কোনোই পার্থক্য নেই। ইত্যাদি বিষয় বেদ, কোরান ও হাদিছ মুখোমুখি উত্থাপন করে এর সত্যাসত্য পাঠকের সামনে তুলে ধরা হয়েছে। সূত্র: [কোরান বনাম শরিয়ত গ্রন্থের গ্রন্থকারের নিবেদন থেকে]

বইয়ের নাম: কোরান বনাম শরিয়ত
প্রকাশক: ঘাস ফুল নদী
স্টল নং: ৪৫০
বিনীত