ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 
stock-photo--happy-woman-and-child-in-the-blooming-spring-garden-child-kissing-woman-mothers-day-holiday-180684782

গত কিছুদিন যাবৎ একটি ঘটনায় পুরো বাংলাদেশ ব্যাপক ভাবে আতংকিত, শঙ্কিত আবার বিকৃত বিনোদনে বিনোদিত । সেটি রামপুরার বনশ্রীর নুসরাত এবং আলভী হত্যা । যদিও প্রকৃত হত্যাকারী এখনও শনাক্ত হয়নি । কিন্তু আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর এবং গনমাধ্যম কর্মীদের সংবাদ থেকে জানা যায় প্রাথমিক তদন্তে বাচ্চা দুটোর মা হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে । কারন হল বাচ্চাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা । কখনও কি বিশ্বাসযোগ্য ! সেদিন আবার তাদের চৌদ্দতম বিয়ে বার্ষিকী ছিল । পরিবারের লোকজন ও বিশ্বাস করতে পারছে না। এমন ঘটনা বিশ্বাস করার কথা নয় ।আমাদের দেশের একজন গৃহিণী মা মনের দিক থেকে নানা ভাবে অসুখী থাকে । প্রতি নিয়ত তাকে ত্যাগ স্বীকার করে শুধু দাম্পত্য জীবন ধরে রাখার জন্য লড়াই করতে হয় । প্রতি মুহূর্তে তাকে সুখের অভিনয় করতে হয় । একটি মেয়ে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজনদের আপন করার জন্য কতো কিছুই না করে । অন্য দিকে একজন ছেলে কোনদিনই স্ত্রীর পক্ষের কাউকে আপন ভাবতে পারে না । স্বামী আর শ্বশুর বাড়ির মন যোগাতে যোগাতে নিজের সবটুকু অস্তিত্ব বিসর্জন দিতে হয় ।

এখনও শিক্ষিত কিংবা অশিক্ষিত যৌতুকের লোভ থেকে কোন পুরুষই মুক্ত নয় । মেরুদণ্ডহীন বিবেকহীন সমাজের এক শ্রেণীর শিক্ষিত সমাজ । যাইহোক পত্রিকা থেকেই জানা যায় মাহফুজা আক্তার ম্যানেজমেন্ট এ মাস্টার্স করা এবং জামালপুরের একটি কলেজে শিক্ষক ছিলেন । একজন শিক্ষিত মা এবং শিক্ষক কোন পরিস্থিতে খুনি হয়ে উঠলো কিংবা খুনি সাজানো হল । কেন সবাইকে জিজ্ঞাসা করা হলেও বাচ্চা দুটোর দাদিকে কিছু জিজ্ঞাসা করা হয়নি । অতি উৎসাহী সমাজ একটি মেয়ের করা কোন নেগেটিভ খবর পেলেই হল । মিথ্যা দোষারোপ করতে বিকৃত আনন্দ পায় । আজ মাহফুজা আক্তারের ঘটনা কোন স্ত্রী কিংবা মা এর ইমেজকে কলঙ্কিত করেছে । গা শিউরে উঠা ঘটনা ভবিষ্যৎ সব নারীকেই মিথ্যা অপবাদ বইয়ে বেড়াতে হবে । একটি সন্তানের জন্ম হওয়ার রোমাঞ্চকর এবং কষ্টকর গল্প একজন মায়ের চেয়ে কেউ দিতে পারবে না । আজ আমরা কিংবা আমাদের বিবেক কোথায় নিয়ে যাচ্ছে যে একজন মা কে খুনি হিসেবে খুব দ্রুত স্বীকৃতি দিয়ে দিচ্ছি । যে মহিলা দুইটি বাচ্চা জন্ম দেওয়ার কষ্ট ভোগ করেছে এবং সংসারের জন্য নিজের একটি ক্যারিয়ার বিসর্জন দিয়েছেন । সে তাঁর আদরের সন্তানদের খুন করেছেন । পৃথিবীর বিবেক আজ শূন্য পথে হাঁটছে । কাউকে দোষারোপ করার আগে আরও একটু থামুন । একবার নিজের বিবেক কে জিজ্ঞাসা করুন ।ঘটনা এবং বাস্তবতা গুলো বুঝার চেষ্টা করুন । এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পত্রিকাওয়ালারা বেশ ভালভাবে খবর বিক্রি করেছেন । হয়তো আরও কিছুদিন করবে । কিন্তু কি এমন গোপন রহস্য একটি সোনার সংসারের কথা ভুলে গিয়ে নিজেদের বিবাহ বার্ষিকীতে নিজের দুই সন্তান এর খুনি হলেন একজন মা । একজন সুস্থ মা কিংবা মানুষের পক্ষে কি সম্ভব ? প্রকৃতির কাছে কোনও কিছুই লুকানোর নেই ।পৃথিবীর সকল রহস্য ভেদ করে একদিন সত্য বের হয়ে আসবে । মা চিরকালই মা । একজন মা কোনদিন হত্যাকারী হতে পারে না ।

সর্বশেষ এডিট : ১০ ই মার্চ, ২০১৬ বিকাল ৪:০০