ক্যাটেগরিঃ শিল্প-সংস্কৃতি

 

15556110_10209802698442239_648543891_n(প্রতিযোগিতায় নৃত্য পরিবেশনের সময়)

আকাশলীন বদরুদ্দোজা দিঠি। পেশায় একজন চিকিৎসক। বর্তমানে তিনি জাপানের হেলথ সায়েন্সেস ইউনিভার্সিটিতে বায়োম্যাটেরিয়ালস ও বায়োইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পিএইচডির ছাত্রী। শৈশব থেকেই সাংস্কৃতিক চর্চার সাথে জড়িত। নাচ, গান, কবিতা লেখা সব বিষয়ে সমান দক্ষতায় এগিয়ে যাচ্ছেন। বর্তমানে পিএইচডির পড়াশুনা আর রিসার্চ নিয়ে ব্যস্ত হলেও নিজের শখের বিষয় থেকে একটুও দূরে থাকতে পারেননি। শৈশব থেকেই নৃত্যকলার উপর জয় করছেন অসংখ্য পুরুস্কার। মাত্র এগারো বছর বয়সে নাচের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে জাতীয় পুরুস্কার গ্রহণ করেছেন।

15317787_10209752258861281_3079255143308056521_n(এগারো বছর বয়সে জাতীয় পুরুস্কার অর্জন)

15439830_10207605026458926_188571365495270734_n(স্বামী এবং সহকর্মীদের সাথে তোলা ছবি)

শুধু দেশ নয় আর্ন্তজাতিক অঙ্গনেও এবছর সফলভাবে নৃত্যে সেরা এ্যাওয়ার্ড জয় করেছেন। ২০১৩, ২০১৪ এবং ২০১৬ সালে জাপানের হেলথ সায়েন্সেস ইউনিভার্সিটি অফ হোক্কাইডোতে আয়োজিত ইয়ার এন্ড কালচারাল কম্পিটিশনে অংশ গ্রহণ করে পরপর তিনবার প্রথম স্থান অধিকার করেছেন।

হোক্কাইডো ইউনিভার্সিটি ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট এ্যাসোসিয়েশন প্রতি বছর “বুনকাসাই” ফেস্টিভ্যালের আয়োজন করে। যেখানে সমগ্র পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে আসা ছাত্র-ছাত্রীরা নিজের প্রতিভা প্রকাশের মাধ্যমে নিজ দেশের সংস্কৃতি কে তুলে ধরে বিশ্ব বাসীর সামনে। ২০১৬ সালে আয়োজিত “বুনকাসাই” ফেস্টিভ্যালে আকাশলীন অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশী সংস্কৃতি কে নিজের নৃত্যের মাধ্যমে বিশ্ব বাসীর সামনে তুলে ধরে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছেন। আর্ন্তজাতিক অঙ্গনে তার এই অর্জন পুরো দেশবাসীকে গর্বিত করেছে।

15536928_10209802707122456_334666269_o(জাপানে পুরুস্কার গ্রহনের সময়)

15369123_736346739847813_7468970014674613209_o

15491932_10209802698282235_308262937_o

(মনোমুগ্ধকর নৃত্য পরিবেশনের সময় তোলা ছবি)

তিনি জানান মাত্র আট বছর বয়স থেকে নাচের উপর তালিম নেন। বাংলাদেশের বুলবুল ললিতকলা একাডেমির নিয়মিত ছাত্রী ছিলেন। তিনি ওস্তাদ শিবলী মোহাম্মাদের কাছে “কথক”, আবদুস সাত্তার স্যারের কাছে সাধারন নৃত্য, আর দীপা খন্দকার ম্যাডামের কাছে ভারতনাট্যম শিখেছেন।

আজকের অবস্থানে আসার পিছনে তার মা প্রয়াত প্রফেসর আখতার জাহান মীর্জার অবদান অনস্বীকার্য। তার অক্লান্ত পরিশ্রম আর ভালোবাসায় তিনি জীবনের প্রতিটি ধাপে এগিয়ে গেছেন। কিন্তু মায়ের অকাল প্রয়ানের পর স্বামী ডা: মো: রিয়াসাত হাসান সব সময় উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছেন। অনেকেই শিল্পচর্চা করেন। কিন্তু অস্থির পৃথিবীর নানা প্রতিবন্ধকতায় তা থেমে যায়। আকাশলীন নিজেকে ভাগ্যবতী মনে করেন কারন তার স্বামী বাংলাদেশের রক্ষণশীল সমাজকে উপেক্ষা করে এবং লোক কথায় কান না দিয়ে তার শিল্প সাধনায় প্রেরণা দিয়ে যাচ্ছেন।

15272202_10209696589709587_1556968527714977169_o(স্বামী ডা:মো: রিয়াসাত হাসানের সাথে)

তরুণ এই গবেষক, চিকিৎসক এবং নৃত্য শিল্পীর জন্য বিডিনিউজব্লগ পরিবার থেকে রইলো প্রাণঢালা অভিনন্দন আর ভালোবাসা।

নৃত্যানুষ্ঠানের ভিডিও লিংক-

নুরুন নাহার লিলিয়ান
নির্বাহী সম্পাদক
মহীয়সী নারী বিষয়ক নিউজ পোর্টাল।