ক্যাটেগরিঃ নাগরিক মত-অমত

প্রিয় আফসানা, আপনি জানলেন না কত কোটি মানুষের চোখের পাতা ভিজিয়ে আপনি চলেন গেলেন। তাবৎ দুনিয়াকে আরও একবার প্রমাণ করে গেলেন স্বামী-স্ত্রীর গভীরতম পবিত্র সম্পর্ক কতোটা নিখুঁত সত্য। আপনার স্বামীর লাশ দেশে ফেরার দিন থেকেই আপনার অসুস্থতার খবর শোনা যাচ্ছিল। অবশেষে মৃত্যুর খবরও। তারপরও মানুষ বিশ্বাস করতে পারছিল না। ভয়ংকর সত্য কে আমরা কখন ও মিথ্যা প্রমান করতে চাই। আপনি হয়তো মন থেকে আপনার প্রিয়তম বৈমানিক স্বামীর ক্ষত-বিক্ষত মুখটি আর দেখতে চাননি। আপনার বৈধব্য হয়তো আপনাকে একদম মানাতো না। এই যুগে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কগুলো নিদারুন হাল্কা আর ভঙ্গুর ভাবতেই মানুষ অভ্যস্ত হয়ে উঠেছিল। সেখানে আপনি এক অভূতপূর্ব অধ্যায় সুচনা করে গেলেন। স্বামীর প্রতি  নারীর শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার শ্বাশত দিক আর ও একবার উন্মোচন করে গেলেন।

স্বামীর প্রতি কতোটুকু ভালোবাসার গভীরতা থাকলে তাঁর বিয়োগে আপনার মস্তিস্কে রক্তক্ষরণ হয়  আমাদের কারও জানা নেই । আজও পৃথিবীতে ভালোবাসার জন্য এমন নিভৃতে এমন অভিমানে চলে যাওয়া যায়। আপনি শিখিয়ে গেলেন নারীরা আজও ভালবাসতে জানে। একদিন সবাইকে একা হয়ে যেতে হয়। আপনার একমাত্র ছেলেটি হয়তো একটু বেশি আগেই অনাথ হয়ে গেল। ভীষণ নিঃসঙ্গ হয়ে গেল আপনাদের সাজানো সংসার। আপনি ছিলেন একজন বৈমানিক পত্নী। আপনার নিশ্চয়ই এমন সব ঝড় সামলানো কিংবা এমন সব সত্যের মুখোমুখি হওয়ার গল্প জানা ছিল। তারপরও দেখুন ভালোবাসা ভীষণ অসহায় দুর্বল। আর তাই তো আপনার মতো একজন ব্যক্তির এমন বিদায় আমাদের দেখতে হল। আপনার মস্তিস্কের রক্ত ক্ষরনে কতো নারীর যে মস্তিস্কে ক্ষরণ চলছে অনেকের জানা নেই।  এ কেমন যৌথ বিদায়!

 

আপনিসহ ইউএস বাংলা বিমান দুর্ঘটনায় প্রাণহীন নিথর দেহের সংখ্যা একান্ন হল । আপনাদের এই আকস্মিক মৃত্যু আবার  প্রমাণ করে গেল জীবন ভীষণ তুচ্ছ। জীবন ভয়াবহ অনিশ্চিত। নিয়তির কাছে মানুষ বন্দি চিরকাল। আর মৃত্যুর কাছে পৃথিবীর সকল ক্ষমতা ম্লান। এটাই সত্য যে এই পৃথিবীতে আমরা সবাই ক্ষনিকের অতিথি। কেউ চিরদিনের জন্য থাকতে আসিনি। আর এটাও সত্য আজও মানব হৃদয়ে ভালবাসা বহমান। আপনার এমন চলে যাওয়া মানুষের মানবিকতা বোধের জায়গাগুলোকে আরও একবার গভীরভাবে স্পর্শ করে গেল। উজ্জীবিত করে গেল ভালোবাসার চেতনাবোধকে।

পবিত্র দিন জুম্মাবার সকালে আপনি সত্যি সত্যি সবাইকে আচমকা অবাক করে দিয়ে চলে গেলেন। দেখুন তো পুরো পত্রিকার পাতা, খবরের শিরোনামগুলো আপনাদের শোকে স্তব্ধ । অথচ দেখুন আমরা হয়তো অনেকেই আপনাদের চিনিনা । কিন্তু না চাইলেও দু’ফোঁটা চোখের জল কেমন অদ্ভুত ভাবে গাল বেয়ে ঝরছে। এই পৃথিবীর মানুষের ভালোবাসার অনুভূতিতে আপনারা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন ।

হে নারী, আপনাকে অভিবাদন। অনেক শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা রইল।