ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

ঘটনাটা শোনা কথা। কিন্তু যে কেউ পড়ে বলবেন আসলেই বাস্তবতা এই রকমই। মূল গল্পে আসা যাক। কোন এক এলাকায় ভোট উৎসব শুরু হয়েছে। প্রার্থী দুজন। একজন যোগ্য আর সুশিক্ষিত আর অন্যজন মধ্যম শিক্ষিত এবং আদতে অযোগ্য। আর জনগণ স্বভাবতই অন্ধকারে এবং প্রার্থী নির্বাচনে দ্বিধাবিভক্ত। তুমুল অবস্থায় নির্বাচনী প্রচারণা, কেউ ছাড় দিতে নারাজ। পরিস্থিতি এমন এসে দাঁড়াল যে নিরপেক্ষ তৃতীয় পক্ষ ব্যাতিত নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্পন্ন বা কাউকে বিজয়ী ঘোষণা করা সম্ভবপর রইল না। অতএব বাইরের এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিদের আনা হল নিরপেক্ষ তৃতীয় পক্ষ হিসাবে। শেষে ঠিক হল ভোট নয় ব্যাক্তির যোগ্যতাই বিজয়ের নিয়ামক হবে। স্বল্প শিখিত জন এবার যেন বেশি ব্যাস্ত হয়ে পরল। সে ঘোষণা দিয়ে বসল, যে সে এই তৃতীয় পক্ষকে মানে না, যা হবার সবার সামনে হতে হবে। অনেক বাক্য ব্যয় করে তার সিধান্তকেই চূড়ান্ত করা হল। শিক্ষিত জন তো এই ভেবে বসে থাকল যে বিদ্যার জোরে তার জয় হবেই, এবং সেই হতে যাচ্ছে পরবর্তী নেতা। যাইহোক একসময় সেই দিন এসে উপস্থিত হল। প্রথমে শিক্ষিত জনকে অপর জনকে প্রস্ন করতে বলা হল ইংরেজিতে। সে স্বল্প শিক্ষিত জনকে জিজ্ঞাসা করল ‘what is your name?’ এতটুকুর মানে সেই স্বল্প শিক্ষিত জন জানত। সে বলে বসল ‘my name is ….’ এবার তার পালা। কিন্তু মনে মনে সে বুঝে গেল তার বিদ্যার জোর। সে এও জানত যে সে এই ভাবে চললে নিশ্চিত হারবে। সে তাই সবার উদ্দেশে বলল ‘আমি একটা প্রশ্ন করতে পারি কিন্তু, ও সেইটার উত্তর দিতে পারবে না। কারন সে ওইটার উত্তর জানে না।থাক ঐ জিতুক আমি প্রশ্ন করে ওকে হারাতে চাই না।’ সবাই হই হই করে উঠল, না না আপনাকে প্রশ্ন করতেই হবে। সে অনেক তাল বাহানার ভান করতে লাগলো। অবশেষে সে বলল ‘ঠিক আছে। তাহলে বলেনতো i don’t know এইটার বাংলা কি?’ শুনেই অপর প্রার্থী বলে উঠল ‘আমি জানি না।’ স্বল্প শিক্ষিত প্রার্থী বলে উঠল ‘ভাই একটু জোরে বলেন শুনি নাই।’ অপর প্রার্থী চিৎকার করা বলল ‘আমি জানি না।’ ব্যাস আর যাবে কোথায়, স্বল্প শিক্ষিত প্রার্থীর চোখ চক চক করে উঠল সে চিৎকার করে বলল, ‘দেখলেন কি বলল উনি, উনি জানেন না।’ চারিদিকে হই হই শুরু হয়ে গেল। সবাই এক বাক্যে ধন্নি ধন্নি করতে লাগলো তার। পরবর্তী পদক্ষেপ হিসাবে তাকেই ঐ এলাকার নেতা ঘোষণা করা হল।

আমার এই আপাত শোনা গল্পটা বলার পেছনে কিছু উদ্দেশ্য আছে। আমাদের সমাজের নেতা নির্বাচনের ক্ষেত্রে এই গল্পের কাহিনী কেন জানি আমার মনে হয়েছে খাপে খাপে মিলে যায়। আমরা আসলেই অন্ধ আর বোবা। খালি শুনতে পারি। যে কেউ এসে আমাদের হাই কোর্ট দেখায় আর আমরা তা বোকার মতো মেনে নেই। অযৌক্তিক যুক্তি আর ফাঁকা দৃঢ়তায় আমরা অবাক হই। কেউ এসে হঠাৎ সমস্যা সৃষ্টি করলে আমরা তা তো থামাতে চাই ই না বরং আরও বাড়িয়ে দেই। বেশি আর কি ই বা বলব? মতি ফিরে আসুক আমাদের। এই কামনাই করি।