ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

rajniti_28294

শুনেছি একটা মিথ্যা শতবার বললে তা নাকি সত্যে পরিনত হয়। বর্তমান সময়ে বিএনপি-জামাত যেভাবে আওয়ামীলীগকে নাস্তিক বলা শুরু করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে সত্যি সত্যিই অনেক আওয়ামীলীগকর্মীর মধ্যে নাস্তিকতা বিরাজ করছে। কারন তারা মুসলমানের ঘরে জন্ম নিয়েও দাড়ি-টুপিকে এড়িয়ে চলতে চাইছে। আবার যেভাবে সবাই বিএনপি-জামাতকে জঙ্গি-সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে চলেছে তাতে করে তাদের কার্যকলাপ এর মাঝে কেমন জানি একটা জঙ্গি-সন্ত্রাসী অথবা আততায়ীর গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

কেমন জানি তারা দেশ, স্বার্বভৈৗমত্ব, স্বাধীনতা, জাতীয় পতাকা থেকে দুরে চলে যাচ্ছে। পাকিস্তানকে ঘৃনা করার পরিবর্তে তারা ঐ ঘৃণীত দেশটির ইতিবাচক বিষয়ে আলোচনা করছে। একপেশে করে ভারতকে গালি দিয়েই চলেছে। ফলে আমরা বাঙ্গালী জাতী হিসেবে অস্তিত্ব্য সংকটে পড়ছি। একসাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত আমার স্বাধীনতাকে আজ অনেকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য ভাবছে। আসলে আমরা প্রতিনিয়ত কোথায় যেন একটা ভুল করে চলেছি। আমাদের এই ভুল থেকে বের হয়ে আসা জরুরী। স্বার্থের জন্য আমরা নিজেরা নিজেদের ভায়ের গায়ে আগুন দিচ্ছি। স্বার্থের জন্য আমরা ভুলে যাচ্ছি আইন-আদালত এমনকি নিজেদের নুন্যতম মানবিকতাটাও। মানেন বা নাই মানেন বুড়ো এই পৃথিবী এখনও টিকে আছে মানুষের ভালবাসার উপর নির্ভর করে। ভালবাসা আছে তাই এই পৃথিবী আছে। আমরা একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল তাই এক একজন আশরাফুল মাকলুকাত ভিন্ন-ভিন্ন মানষিকতার হয়েও তারা একসাথে বসবাস করতে পারছে। সহমর্মীতা না থাকলে আমরা কেউ সুস্থ্যভাবে বাঁচতে পারবো না। বিপ্লব বলেন আর আন্দোলন বলেন তা ধ্বংসের তান্ডবলীলা নয়, বরং তা সৃষ্টির দার উন্মোচনকে প্রকাশ করে। তাই আমাদের উচিৎ আন্দোলন এর সঠিকটা প্রয়োগ করা। কোন কিছুর ব্যবহার ভাল কিন্তু অপব্যবহার যে মোটেও ভালনা। সবাই আমরা বাংলাদেশী। এদেশ আমার মা। আমরা একই মায়ের সন্তান। তাই আমরা একে অপরের ভাই। আমরা কেন ভাই হয়ে ভায়ের ক্ষতি-সাধন করবো? আমরা চাই শান্তিতে বসবাস করতে। আমরা চাই একে-অপরের সাথে কাধে-কাধ মিলিয়ে চলতে। দেশটাতো আমাদের সবারই তাই না?