ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

সরকারের বিরোধীদল নাজেহাল করার শত প্রচেষ্টা ভেস্তে দিয়ে অবশেষে পলায়িত বিএনপি ও জোটের শীর্ষ নেতারা জামিনের জন্য গতকাল আদালতে উপস্থিত হন। শেষ খবর হল আদালত তাদেরকে সাত দিনের সময় দেন এই সময়ের মধ্যে মামলাটি প্রধান বিচারপতির কাছে যাবে এবং তখন তিনি তৃতীয় একজন বিচারপতির কাছে পাঠাবেন । এখানে উল্লেখ্য যে এই সময়ের মধ্যে তাদেরকে কোনো রকম হয়রানি না করার আদেশ দেয় আদালত ।

যদিও আজকের এই মিথ্যা মামলার হাত থেকে কিছুটা হলেও রেহাই পেল বিরোধী দলের নেতারা , তবে সংবাদ ভালো না জনগনের জন্য । বেশ কয়েকদিনের জন্য অন্তত হরতাল, বিদ্রোহ ,সমাবেশ থেকে রাজধানী ঢাকা সহ গত দেশ কিছুটা হলেও রেহাই পেয়েছিল ।

কিন্তু মির্জা ফকরুল বেরিয়েই সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দিলেন

মাঠের লড়াই এবং আইনি লড়াই দুটোই চলবে সরকারের বিরুদ্ধে

সরকার রাজনীতিতে ব্যর্থ হয়ে আইনের মাধ্যমে বিরোধী দলকে ঘায়েল করতে চাচ্ছে যেটার জবাব দেয়া হবে আইনের ভাষায় ।

এটি মধ্যে বুধবার বিক্ষোভ ঘোষণা হয়ে গেছে এবং আগামী কিছু ঘন্টায় আর কি কি ঘোষণা আসে তাও দেখার বিষয় । তাছাড়া সরকারি দলও বসে থাকবে বলে মনে হয় না নতুন কোনো নাটক যদিও কোনো গুম কিনবা হত্যার সাহস না পেলেও বিরোধী দমনের অন্য পথের সন্ধানে হয়ত তারা এখুনি নেমে গিয়েছে ।

একই সাথে বলতে হবে সরকার তাদের কৌশলে সফল , তারা বিএনপির যেই মহা আন্দোলন গড়ে উঠেছিল তা কিছুটা হলেও দমাতে সক্ষম হয়েছে ।

তবে মামলার এত শান্তিপূর্ণ সমাধান হবে আমি ভাবিনি অন্তত । তবে অবশ্যই ক্রেডিট দিতে হবে হিলারি ক্লিন্টনকে তার আগমনে অনেকটুকুই সোজা পথে এসেছে সরকার । এখন অবশ্য সময় এসেছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার তার ওয়াদা রাখার যে ওয়াদা তিনি করেছিলেন ইলিয়াস আলীর তিন সন্তান ও তার স্ত্রীর কাছে যে তিনি তাকে জীবিত ফিরিয়ে দিবেন তাদের কাছে ।

তবে এখন কথা হলো আর দশটা খুন এবং গুমের মত কি ইলিয়াস আলিও হারিয়ে যাবেন সাগর-রুনির সাথে? নাকি আবার চাঙ্গা হবে ঝড় , আবার হবে আন্দোলন , যা আনবে ফিরিয়ে ইলিয়াসকে ? নাকি বিএনপি ইলিয়াস এর বলি মেনে নিল কোনো এক কালো রাজনৈতিক দাবার চালে ? উত্তর হয়ত পেয়ে যাব কয়েকটি দিনের মধ্যেই ..