ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

ফুলের মতো নিষ্পাপ পরাগ মন্ডল বিমল মন্ডলের ছেলে থাকে ঢাকার কেরানীগঞ্জে । কয়েকদিন আগে সন্ত্রাসীরা তার মা ও বোনকে গুলি করে অপহরণ করে পরাগ কে ।সঙ্গত কারণে এই ঘটনাটি বিগত কয়েক দিনে দেশের মূল সংবাদ হিসেবে দেখা যায় সব সংবাদ মাধ্যম ও জনগণের কাছে । পাগলের মতো ছেলেকে পেতে আকুলতা জানায় পরাগের মা, বাবা ও পরিবারের সদস্যরা। সন্ত্রাসীরা ২ কোটি টাকা নাকি দাবী করে,পরে ৫০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে তাকে উদ্বার করা হয় পরাগকে (র‌্যাবের তথ্য মতে) ।গত পরশু দিবাগত রাতে তাকে উদ্বার করা হয়। এ দিকে র‌্যাব বলছে তাকে উদ্বার করার জন্য তার বাবা নাকি ৫০ লক্ষ টাকা দিয়েছে। ।আবার বিমল মন্ডল কে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি তা এড়িয়ে যান এবং বলেন তিনি টাকা দেননি। আবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন তিনি এ ব্যাপারে পুরোপুরি অবগত নন। পুলিশ বলেছে তাঁদের পেঁতে থাকা ফাঁদে পা দিয়েছে সন্ত্রাসীরা কোন ধরনের টাকা দেওয়া হয়নি । কিন্তু ফাঁদটা কি ছিলো তা পুলিশ বলেনি ।এ নিয়ে র‌্যাব, পুলিশ ভিন্ন কথা বলছে । বিভিন্ন চ্যানেলে তাদের সাক্ষাতকার দেখে জানলাম, র‌্যাব বলছে টাকা দিয়ে উদ্বার আর পুলিশ বলছে ফাঁদ পেতে, কেন এই ধরনের ধোঁয়াশা? আবার র‌্যাব বলছে এক জন বড় সন্ত্রাসী নাকি এর সাথে যুক্ত যে কিনা কয়েক দিন আগে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছে আবার র‌্যাব তাঁর নাম বলছে না। হয়তো সংগত কারণে র‌্যাব তার নাম বলছে না। আবার পুলিশ বলছে তারা সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতার করবে । র্যা ব প্রতিষ্ঠার পর থেকে তারা যথেষ্ঠ দায়িত্বশীলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে বলে আমি মনে করি । এবং তাদের কাছে হয়তো এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট প্রমাণ রয়েছে। র‌্যাব ও পুলিশের কাছে দেশের জনগণের এখন একটাই চাওয়া আপনারা আপনাদের অবস্থান পরিষ্কার করুন । কিস্তু যাকে নিয়ে এত কথা সেই নিষ্পাপ শিশু কি জানে তাকে ঘিরে এতো রহস্য? অবশ্য ঐটুকু বাচ্চার তাতে কিছু যায় আসে না । সে মায়ের কোলে ফিরেছে এটাই বড়ো কথা, এতেই তাদের পরিবারে রাজ্যের সুখ দেখা যাচ্ছে। এটাই চেয়েছিলো দেশের মানুষ। যে যাই বলুক না কেন পরাগের সুস্থভাবে ফিরে আসার জন্য ধন্যবাদ পাওয়ার দাবী রাখে পুলিশ, র‌্যাব সহ সরকারের সকল গোয়েন্দা সংস্থা। কারণ এ ব্যাপারে কিন্তু কারো কোন গাফেলতি লক্ষ্য করা যায়নি , সবাই ছিলো সচেষ্ট।যাই হোক সরকারের কাছে এখন প্রত্যাশা এটাই এই রহস্যের জট খুলুক শীঘ্রই ।