ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

এই ছবিটা কুমিল্লা থেকে আসার সময় তুলেছিলাম। এটা আমাদের দেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম হাইওয়ে রোড! খেয়াল করে দেখেন, যেখানে ১০০ কিমি স্পিডে চলতে থাকা একটা বাসের সামনে একটা সিএনজি আর রিক্সা পাল্লা দিয়ে চলছে!

হ্যা, আরেকটু চিন্তা করুন। একটা রিক্সা বাসের সাথে চলছে হাইওয়েতে! তাহলে এক্সিডেন্ট হবে না কেন? এখানে তো বাসের বাতাসের ধাক্কা খেয়েই রিকসার চিৎপটাং হয়ে যাওয়ার কথা! আর এই এক্সিডেন্টগুলোকে রোধ করার জন্য যে ব্যাবস্থা নেও্য়া হয়েছে আমরা তার বিপক্ষে নেমে রাস্তা অবরোধ করছি! আমার সোজা কথা, নছিমন আর করিমন মালিক সমিতির সবগুলোকে ধরে রুলারে মলা দেওয়া উচিত। আমার মনে হয়না পৃথিবীর আর কোনো দেশের হাইওয়েতে রিক্সা, নসিমন-করিমন চলে!

আর যারা নসিমন-করিমন না চালালে তাদের ফ্যামিলি চলবে কিভাবে এই লজিক দেখাবেন তাদেরকে বলি, মাত্র ৩ হাজার ৫৭০ কিলোমিটার রাস্তায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। সারা দেশের প্রায় ২ লাখ ৫০ হাজার কিলোমিটার রাস্তায় ধীরগতির যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত আছে।সুতরাং, তারা ওই রোডগুলোতে চলে গেলেই হয়!

হাইওয়েকে হাইওয়ের মতই হইতে দেন। তখন দেখেন লং রোডের যোগাযোগ কত সুবিধা হয়। ২০১০ সালে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল, তখনো নসিমন-করিমন মালিকদের কারনে আর কার্যকর হতে পারেনি। এইবার যেন বন্ধ না হয়। কিছু পেতে হলে আমাদেরকে কিছু ছাড় দিতেই হবে এটাই স্বাভাবিক।

হাইওয়েকে হাইওয়ের মতই হইতে দেন...