ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

ব্যান্ডদল পাওয়ার সার্জের গিটারিস্ট সাইমুম হাসান নাহিয়ান ও মিরর ব্লেজ ব্যান্ডের ড্রামার আফিফ বুধবার জামিনে মুক্ত হয়েছেন। স্বর্ণালঙ্কার চুরির অভিযোগে ১১ সেপ্টেম্বর তাদের গ্রেফতার করা হয়। তবে এ মামলাকে ‘মিথ্যা’ ও ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ উল্লেখ করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন গ্রেফতারকৃতদের সহশিল্পীরা। ফেসবুক, সামহোয়ার ইনসহ বিভিন্ন ব্লগসাইটেও এই দু’জনকে গ্রেফতার নিয়ে নানা সমালোচনা করা হয়েছে।

নাহিয়ান ও আফিফের আইনজীবী ব্যারিস্টার অনীক আর হক বলেন, ধানমন্ডি থানার একটি চুরির মামলায় সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে। তবে তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ এখনও প্রমানিত হয়নি। তাই আবেদনের ভিত্তিতে আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

এদিকে নাহিয়ান ও আফিফের সহশিল্পীরা বলছেন, মামলার এজাহারে নাম না থাকার পরও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে নর্থ-সাউথ ইউনিভার্সিটির ছাত্র নাহিয়ানকে গ্রেফতার ও নির্মম নির্যাতন করা হয়। খবর পেয়ে তাকে দেখতে গেলে এলএলবি শেষ বর্ষের ছাত্র আফিফকেও পুলিশ গ্রেফতার করে। এসময় মামলার বাদী ব্যবসায়ী মিনহাজ মান্নান ইমনের উপস্থিতিতে তার স্ত্রী প্রকাশ্যে বলেন, তিনি নাহিয়ান ও তার বন্ধুদের ঘৃণা করেন। কারণ তারা লম্বা চুল রাখে, হাফ প্যান্ট পরে, সিগারেট খায়, গিটার বাজায় ও ছাদে বসে আড্ডা দেয়। মঙ্গলবার বাংলাদেশ মিউজিক্যাল ব্যান্ড অ্যাসোসিয়েশনের (বামবা) সভাপতি কণ্ঠশিল্পী হামিন আহমেদের পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ বক্তব্য উল্লেখ করা হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ধানমন্ডি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাকির হোসেন বলেন, উপযুক্ত তথ্য-প্রমানের ভিত্তিতে নাহিয়ানসহ মোট ৬ জনকে এ মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। নাহিয়ান বা তার বন্ধু আফিফকে কোন নির্যাতন করা হয়নি বলে তিনি দাবি করেন।