ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

সেদিনকার এক ব্লগের মন্তব্যে কিছু বাংলাদেশী অভিযোগ তুললো যে, বাংলাদেশে হিন্দুরা নাকি অনেক শান্তিতেই আছে। আর বাংলাদেশের মিডিয়া নাকি খুবই সচেতন এ বিষয়ে। তুলনামূলক নাকি ভারতে সংখ্যালঘু মুসলিমরা নির্যাতিত হলে খবরে তেমন একটা আসে না।

কিছুদিন আগেকার কথা। রোজার মাস রমজানে এক শিবসেনার সংসদ সদস্য না জেনে এক মুসলিম রাঁধুককে খাবারের নিম্নমানের জন্য খাবার মুখে গুঁজে দেয়। ভারতের প্রধান প্রধান সকল চ্যানেল, পত্রিকা, মিডিয়াতেই এটি এসেছে। অথচ যখন সেইসব মানুষকে দেখালাম অমরনাথ তীর্থস্থাণে প্রায় একই সময়ে হিন্দু তীর্থযাত্রীদের তাঁবুতে মুসলিম কিছু লোক হামলা চালায়, আগুন দেয় – সে খবর পাত্তা পায় না প্রধান গণমাধ্যমগুলোতে।

আর এবারে এক হিন্দু প্রাক্তন শিক্ষিকা গণধর্ষিত হন মাদ্রাসায় এবং ইসলাম ধর্ম গ্রহণে চাপের শিকার হন – সে খবর ক’টা মিডিয়াতে এসেছে? হ্যাঁ, আমরা বাংলাদেশীরা খুব সহজেই ভারতের ভুল-ত্রুটী ধরতে পছন্দ করি। আর সেক্যুলার নাম দিয়ে সাম্প্রদায়িক বলে অনেক দোষারোপ করি। এককথায় নিচের কার্টুনটিই বুঝিয়ে দিচ্ছে বর্তমান ভারতীয় গণমাধ্যম:

এই পোস্টটি শুধু তাদের জন্য। যারা কথায় কথায় বলেন ভারতে মুসলিমরা কোণঠাসা হয়ে বাস করে, সংখ্যাগুরু হিন্দুদের জন্য শান্তিতে টিকতে পারে না। অথচ মনে মনে এমন আশা পুষে সেসব সংখ্যালঘুরা। একটি বারের জন্য শুধু কল্পনা করেন তো কী হতো, যদি বাংলাদেশী সংখ্যালঘু কোনো হিন্দুর দ্বারা মন্দিরে কোনো সংখ্যাগুরু মুসলিম মেয়ে গণধর্ষিত হতো, কেমন হতো মিডিয়া, সাধারণ মানুষের প্রতিক্রিয়া। সে তুলনায় কেমনটা দেখছেন ভারতে? একবার নিজেকে প্রশ্ন করুন।