ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

বিএনপির একটা সমাবেশ (চল চল ঢাকা চল), খুবই সাধারণ একটা সমাবেশ যা আমাদের দেশের রাজনৈতিক দলগুলো অহরহ দিয়ে থাকে। ক্ষমতাসীন আ.লীগ, বিরোধী বিএনপি সহ ক্ষুদ্র দলগুলোও এমন সভা সমাবেশ করেছে, করছে আশা করছি ভবিষ্যতেও এই ধরা অব্যাহত থাকবে।

কিন্তু আজ ১২ ই মার্চ বিএনপি সমাবেশকে ঘিরে ক্ষমতাসীন আ.লীগ যা করল তা প্রবাসে বসেও ইন্টারনেট, টিভি, ফেইস বুক আর ব্লগ এর কল্যাণে লাইভ স্টাইলে দেখার সৌভাগ্য হচ্ছে। বিরোধী দল সভা সমাবেশ করবে তা তাদের অধিকার। আজকের ক্ষমতাসীন আ.লীগ কি বিরোধী দলে থাকাকালীন সভা সমাবেশ করেনি? হ্যা করেছে অনেক বেশিই করেছে। তাদের যুক্তি আমরা সভা সমাবেশ, হরতাল করেছি জনগণের কল্যাণের জন্য, জনগণের সতষ্ফুর্ত সারা সেই সকল সভা সমাবেশ, হরতলে ছিল। একেবারেই খাটি কথা। আপনার যেহেতু মনে করছেন আজকের বিএনপির এই সমাবেশ জনগণের কল্যাণের জন্য নয়, জনগণের কোনও দাবীপুরনের জন্য নয়, এই সমাবেশ শুধুই যুদ্ধপরাধীদের বাচানোর হীন ষড়যন্ত্র। কথাটা হয়ত সত্যি। আর এটা যদি সত্যি হয় তবে আ.লীগ এমনটা কেন করল? বিএনপির এই সমাবেশ যদি যুদ্ধপরাধীদের বাচানোর হীন ষড়যন্ত্র হয় তবে জনগণ তো এই সমাবেশ প্রত্যাখান করবে, কারণ বাংলার প্রায় প্রতিটি মানুষই চায় যুদ্ধপরাধীদের বিচার হোক এবং তা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব। তা হলে আ.লীগ কেন বাধা সৃষ্টি করে এটাকে সফল করে তুলল? নাকি তারা বুঝে গেছে এই সমাবেশ আসলে জনগণের চাওয়ারই প্রতিফলন (আমি মনে করিনা)। এতে কি তাদের ব্যর্থতারই চিত্র ফুটে উঠছে না?
পৃথিবীর কোন গণতান্ত্রিক দেশে এমন নজির নাই যে খানে শুধু একটা সমাবেশকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীনরা সেখানকার সব হোটেল রেস্তোরা বন্ধ রাখে, যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করে দেয়। অবশ্য আমাদের দেশে যে গণতন্ত্রের লেবাসে সম্রাজ্ঞীতন্ত্র চলছে সেখানে এটা খুবই স্বাভাবিক।

একটা কথা জানতাম আলোর দিকেই পতঙ্গের আকর্ষণ, মৃত্যু অনিবার্য জেনেও পতঙ্গেরা আলোর মধ্যে ঝাপ দেয়। পতঙ্গ তো একটা কিছুকে লক্ষ করে নিজেকে কুরবানী করে, ওরা পতঙ্গ ভাল মন্দ বোধ শক্তি ওদের নেই তবুও লক্ষ আলো অর্থাত্‍ সুন্দর কিছু একটা। কিন্তু আমরা মূর্খরা কি পতঙ্গের চেয়েও অধম বনে যাচ্ছিনা? না হলে কি করে আমরা ভাল-মন্দ, দেশের কল্যাণ চিন্তা না করেই শ্রুতের মাঝে নিজেকে বিলিয়ে দেই, আগুনে ঝাপ দেই কিছু না জেনে, না দেখে, না বুঝেই।

চল চল ঢাকা চল বিএনপির এমন একটা অখাদ্য সমাবেশকে আ.লীগ শুধু খাদ্যই করে তুলেছে তা নয় তারা এটাকে পোলাঊ-কোরমা জাতীয় অসাধারণ খাদ্যে পরিণত করে তুলেছে। আ.লীগ হয়ত জানেনা (আমার বিশ্বাস জানে এবং খুবই গভীর ভাবেই জানে) বা ভুলে গেছে স্রোত যেখানে বাধা পায় সেখানেই প্রবল হয়, বেগবান হয়। এমনটাই হয়েছে বা হচ্ছে আজ। আমার মতে আ.লীগের কিছু হাইব্রিড নেতার অতি কথন আর পরামর্শের কারণে আজকের বিএনপির এই সমাবেশ, সমাবেশ করার পূর্বেই সফলতার মুখ দেখেছে। আ.লীগই বিএনপির সমাবেশকে শতভাগ সফল করে তুলেছে।