ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 

এই সেই স্ক্রীনশট!

খবরটি প্রথম ছড়িয়ে পড়ে টুইটারের মাধ্যমে, আমেরিকাপ্রবাসী শিক্ষক রাগীব হাসান বৃহষ্পতিবার সকালে জামায়াতের ইংরেজী সাইটের Current Affairs বিভাগে ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে ছাপা হওয়া একটি বিবৃতির স্ক্রীনশট নেন স্থানীয় সময় বুধবার রাত ৯টা ৫মিনিটে (আমাদের এখানে সকাল), আর তারপর তা ছড়িয়ে দেন লিঙ্কসহ।

বিবৃতিটা পড়লে এটাকে কোন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের কোন পত্রিকার ভাষা ভাবতে পারেন। হ্যাঁ, উদারতা প্রকাশ করতে গিয়েই এই বিবৃতিটা ছেপেছে জামায়াত যেখানে ১৯৭১ সালে সংঘটিত গনহত্যা, ৩০লক্ষ শহীদের আত্মত্যাগ, রেসকোর্স ময়দানে পাকিস্তান বাহিনীর আত্মসমর্পনের কথা উল্লেখ করেছে।

সেই বিবৃতিতে দুইটি চুম্বক প্যারা আছে, যার মধ্যে একটি হলো এটম বোমা!

প্রথমঃ “১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ থেকে শুরু করে ১৬ই ডিসেম্বরে স্বাধীনতা অর্জনের মুহুর্ত পর্যন্ত পাকিস্তান সেনাবাহিনী ও তাদের এদেশীয় দোসররা তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের লক্ষ লক্ষ নিরীহ ও নিরস্ত্র বাঙালীদের হত্যা করে।”

বিবৃতির অংশ

বোমাঃ “জামায়াতে ইসলামী ও অন্যান্য ইসলামী রাজনৈতিক দল সেসময় পাকিস্তান বাহিনীকে সক্রিয়ভাবে সংযুক্ত থেকে মিলিশিয়া ও সহায়তাকারী বাহিনী যেমন রাজাকার, আল-বদর ও আল-শামস গঠন করে যারা সেই গনহত্যায় অংশ নেয়।”

টুইটটা আমি দেখেছি সেদিন রাত সাড়ে ৯টার দিকে, ছবিটা সেভ করলাম। কিন্তু লিঙ্কে ক্লিক করে আমি হতাশ। ততক্ষনে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বিবৃতিটি।

রাত ১০টার দিকে নেয়া স্ক্রীনশট

পরে আরো ঘেঁটে দেখলাম স্ক্রীনশটটি ভুয়া কিনা দেখতে। গুগলে খোঁজ নিয়ে দেখি জামায়াতের ইংরেজী সাইটে ঐ বিবৃতিটি ছিল।

বিবৃতিটির ধরন খুবই ফরমাল, সেজন্যে আবারো একটু সন্দেহ হলো, মনে হলো এটা হয়তো একটা নিউজ আইটেম।

এখান থেকেই কপি করা হয়েছিল বিবৃতিটি

আবার গুগলের সাহায্য নিলাম এবং পাওয়া গেলো বিবৃতিটির সূত্র — নিউ এজ পত্রিকা, যারা বার্তাসংস্থা ইউএনবি’র একটি অতি পরিচিত ফরম্যাটের খবরে একটা প্যারা যুক্ত করে ছেপেছিল বিজয় দিবসের দিন।

একই খবর ছেপেছিল নিউজ টুডে-ও, কিন্তু তারা নিউ এজ-এর মত করে একটি “বিশেষ প্যারা” যুক্ত করেনি।

বাংলা সাইটের জন্য খবরের প্রয়োজনে জামায়াতপন্থী বাংলা পত্রিকা আছে কমপক্ষে তিনটি (সংগ্রাম, আমার দেশ, নয়াদিগন্ত), তাছাড়া অন্য যে কোন পত্রিকায় সরকারবিরোধী কিছু থাকলেই তা সাইটে প্রকাশ করে জামায়াত। কিন্তু বিপদে পড়েছিল ইংরেজী নিয়ে। নিজেরা মাথা খাটিয়ে বা অনুবাদ করে কিছু লিখতে না পেরে নিউ এজ-এর খবরটিই প্রকাশ করে দেয় ওয়েবসাইট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

জামায়াতের না হলেও শিবিরে ইংরেজিজানা নেতা-কর্মী নিশ্চয়ই পাওয়া যাবে, তবুও দুইমাস ধরে তাদের সাইটে এমন একটা বোমা তারা নিজেরাই যে পুঁতে রেখেছে! নাকি ইচ্ছে করেই শিবিরের কোন আধুনিক/মডারেটেড কর্মী জামায়াত নেতাদের শিক্ষা দিতে এ কাজ করেছে, কে জানে!!!

আমি খবর লাগিয়েছি নানা জায়গায়, আপনারাও খবরটা চাউর করে দিন। 😀