ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

আমরা যারা ঢাকার বাইরে থেকে এসে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজে পড়াশুনা করছি এবং টুকটাক টিউশনি করে নিজের খরচের টাকা যোগাড় করার চেষ্টা করি তাদের জন্য আমার এই লেখাটি মোটেও সুখকর না।”বাচ্চারা যে স্কুলে পড়বে,ঠিক সে স্কুলের শিক্ষকের কাছেই প্রাইভেট পড়তে হবে” নিয়মটা যদি এমনই হয় তাহলে তো আমাদের মত পাবলিকের পেটে লাথি লাগবেই।সারাদেশে প্রায় সব স্কুলে ১ম সাময়িক পরীক্ষা শেষ হলো বা হচ্ছে। আমি নিজে ৯ম শ্রেণীর একটা ছাত্রকে পড়াতাম। ১ম সাময়িক পরীক্ষাতে তাদের স্কুল থেকে মাত্র ৩ জন পাশ করেছে তার মধ্যে সে একজন।যারা ফেল করেছে তাদের অভিবাবকদের সাথে কথা বলে জানা গেল তাদের শিক্ষকেরা নাকি বলেছেন আমাদের ছাত্ররা অন্য কোন টিচারের কাছে পড়তে পারবেনা।তারা আমাদের কাছে না পড়লে বারবারই ফেল করতে থাকবে।আসলে তাদের এধরনের মনোভাবের কারন কি?শিক্ষাটা কি এতটাই বাণিজ্যের জিনিস।এর ফলে যে শুধু গৃহশিক্ষকেরাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তা না বরং বানিজ্যিক মনোভাবের ফলে শিক্ষকরা ছাত্রদের প্রকৃত শিক্ষা না দিয়ে নিজেদের কোচিং এ বেশী সময় দেন এবং নিজের নাম প্রচার করার চেষ্টা করেন।(কলিম স্যার,জালিম স্যার এরূপ)