ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

 

অনেক ছোটবেলা, তখন আমার বয়স তিন বছর হয় নাই। পাকিস্থানের যে অঞ্চলটিতে বাবা-মায়ের সাথে আটক ছিলাম তার নাম চশমা ক্যাপ্ম। পাকিস্থানের দক্ষিনে। সাগর পার। প্রতিবেশি ভাইয়াদের সাথে খেলাধুলা করি। এরকম একদিন দুপুরে খেলতে খেলতে সবাই একটা কবর দেখার জন্য একটু দুরে গেল। আমিও বড় ভাইয়াদের সাথে গেলাম। সেখানে হিটলার ভাইয়া, স্বপন ভাইয়া ছিল। আমার এখনও স্পষ্ট মনে আছে একজন লেবার একটা কবর মুদিয়ে ফেলছে।রাগে গজ গজ করছিল আর বেলচা দিয়ে মাটি ভরাট করছিল। খোড়া হয়েছিল কিন্ত দাফন হয় নাই। বহুবছর এই দৃশ্যটা লালন করেছি। বুঝতে পারিনি কি ঘটনা ছিল। এর পর গত ২০০২ সালে স্বপন ভাই-কে আবার ফিরে পেলাম। কথায় কথায় উনাকে উক্ত দৃশ্যের ঘটনাটা বললাম। জানতে চাইলাম আসলে কি ঘটেছিল? তখন তিনি বললেন ওটা ছিল শেখ মুজিবর রহমানের জন্য খোড়া কবর। কোন কারনে কবর হয় নাই তাই তারা কবরটি বুজিয়ে ফেলেছিল। আমি খুব পুলকিত হই যে পাকিস্থানি শোষক চক্র বাঙ্গালীর জনককে কবর দিতে চেয়েছিল এবং কবর দিতে না পেরে রাগে ফুসেঁ কবরের স্থানটি ভরাট করছিল। তিনি সামরিক আদালতে ফাঁসির রায়ের পর বলেছিলেন” আমার দেহটি যেন বাঙ্গলার মাটিতে দাফন করা হয়।” সেদিন আমি খুব পুলকিত হয়েছিলাম এবং ভেবেছিলাম যে অন্ততঃ পাক শাষক চেক্রের ব্যর্থতাগুলোর একটি অন্তঃত আমি নিজের চোখে দেখেছি। আজ সেই জনকের জন্মদিন। শুভহোক মহান নেতা তোমার জন্মদিন। আজ তোমার মত লক্ষ নেতা প্রয়োজন। একটা ফিল্ম বানানো প্রয়োজন চশমা ক্যাম্পর ঘটনা নিয়ে। পারবো কি জানি না?

 

১৫.০৮.২০০৩