ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

 
coke

কোকাকোলা ওরফে কোক-এর মধ্যে রয়েছে বেশ কতোগুলো এসিড যেমন – এসপারাজিনিক এসিড, ওরথোপোসফরিক এসিড, সাইট্রিকএসিড প্রভৃতি। এগুলো থাকার ফলে সারা বিশ্বে কোক দিয়ে ট্রাকের ইঞ্জিনের কাই পরিস্কার,  রক্তের দাগ উঠানো, গাড়ীর ছাদের শক্ত ময়লা পরিষ্কার, জং পড়া, স্ক্র খোলা, ময়লা কাপড় ধৌত, কৃষি কাজে পোকা নিবারন প্রভৃতি কাজে ব্যাবহার করা হয়। এটা অনস্বীকার্য যে কোক খুবই একটি প্রযোজনীয প্রডাক্ট। তবে সেটা পান করার জন্য নয়, ব্যাবহার করার জন্য। কোক নিয়মিত পান করলে কিডনির ক্ষতি হয় বলে অনেকে মন্তব্য করে থাকেন। তবে ভয়ংকর ব্যাপার হচ্ছে কোক গর্ভবতি মায়ের এবোরশন ঘটায়। ষাটের দশকে গর্ভপাত ঘটানোর জন্য কোক ব্যবহার করা হতো। এই ভয়ংকর বিষয়টি প্রত্যেক মায়েদের জানানো প্রয়োজন।

–     কাজী মাহমুদুর রহমান, সাইকোথেরাপি সার্ভিসেস