ক্যাটেগরিঃ ভ্রমণ

 

সবার আগে আপনাকে ঠিক করতে হবে কোন সময়টাতে আপনি রাঙ্গামাটি যাবেন। সাধারনত বর্ষাকালে এখানে পর্যটকেরা বেশি আসেন। কারন বর্ষাকালে চারিদিকে সবুজে ঘেড়া থাকে বৃষ্টির কল্যানে। আর ঝর্নাগুলোর প্রবাহ বেশী থাকে যা দেখতে খুব সুন্দর। তবে মনে রাখবেন অতি বর্ষাতে আবার ঝুলন্ত সেতুটা ডুবে গেলে একটা ভালো জিনিস দেখা মিস করবেন। যাহোক সময়টা ঠিক হয়ে গেলো। এখন শুরু করবেন নিম্নানুসার……..।

১। যানবাহনঃ বাসে যেতে হলে শ্যামলী পরিবহনে যেতে পারেন। তাছাড়া ডলফিন পরিবহন ও আছে। শ্যামলীর জন্য সায়েদাবাদ বাস কাউন্টারে গিয়ে আপনাকে টিকেট নিতে হবে।আপডাউন টিকেট করলে ভালো হয়, কারন আসার সময় টিকেট পাবেন না যদি ঈদ মৌসুম হয়। প্রতিটি টিকেটের দাম পরবে ৭৫০ টাকা (এসি), ৪৫০ টাকা (নন এসি)। শ্যামলী পরিবহনের মোবাইল নং- ০১৬৭২৫৯১২৯৭, ০১৭১১১৩০৮৬২, ০১৯১৪০২১৪৭৭, ০১৯২০৯২৮১৯৩।

২।হোটেল বুকিং: টিকেট কনফার্ম হলে হোটেল বুকিং এর কথা ভাবতে হবে। থাকার জন্য ওখানে রয়েছে হোটেল সুফিয়া সহ আরো কিছু হোটেল। সুন্দরবন কুরিয়ারে গিয়ে হোটেল বুকিং এর জন্য টাকা পেমেন্ট করতে হবে। হোটেল ভাড়া হবে ৮০০-১২০০ টাকার ভিতরে। ফোন করেও বুকিং দেয়া যায়, কিন্তু তার কোন গ্যারান্টি নেই।
হোটেল সুফিয়ার মোবাইল নং-০১৫৫৩৪০৯১৪৯

৩। ঢাকা থেকে রাত ১১-৩০ টায় রওনা দিলে রাঙ্গামাটি পৌছবেন সকাল ৮-০০ টায়। এরপর হোটেলে গিয়ে ফ্রেস হয়ে দেরি না করে বেরিয়ে পরবেন একটি নৌকা ভাড়া করার জন্য (সারাদিনের জন্য) । গন্তব্য হবে শুভলং ঝড়না, পেদা তিং তিং এবং তুক তুক ইকো ভিলেজ। নৌ্কা ভাড়া পরবে ১০০০-১৫০০ টাকা।

৪। পরের দিন বেরিয়ে পড়বেন ঝুলন্ত সেতুটা দেখার জন্য, শপিং এবং শহরটিতে ঘুড়ার কাজটিও এদিন সারতে পারেন।

(যদি ২ দিনের টুর থাকে তাহলে এই ফর্মূলায় ভ্রমনে যেতে পারেন।)