ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের ৪৬টি বছর পার হয়েছে। আজও আমরা মুক্তিযুদ্ধের সময় যে সকল ভারতীয় মুসলিম আমাদের সাহায্য করেছে ও বাংলাদেশী শরণার্থীদের জন্য সাহায্যের ব্যবস্থা করেছে ও ভারতে বাংলাদেশর পক্ষে জনমত গড়ে তুলতে প্রচারণা চালিয়েছে তাদের অবদানের স্মৃতিগুলো একত্রিকরণ করে সাজাতে পারিনি আমাদের ইতিহাস সম্পর্কে উদাসীনতার কারণে ৷

কিন্তু ইতিহাসে খুঁজলে দেখা যায়, মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতীয় মুসলিমদের অবদান ছিল খুবই গুরত্বপূর্ণ ৷ ৭১’এর বাঙ্গালী জাতির দুর্দিনে ভারতীয় মুসলিম সমাজের বিভিন্ন শ্রেনী পেশার জনগণ বাংলাদেশের মুক্তিকামি জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছিল। তারা পাকি হানাদারদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশর মুক্তিকামী জনগনকে মুক্তির আসা যুগিয়ে ছিল।

তৎকালিন সময়ে পশ্চিমবঙ্গ ও আসামে ৫৫ মুসলিম এমএলএ ও ৬ জন মুসলিম সংসদ সদস্য ছিল। ভারতের যে সকল মুসলিম নাগরিক বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধে সময় সক্রিয় ছিলেন তারা হলো ভারতের সাবেক রেল মন্ত্রী ও সাবেক সর্ব ভারতীয় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও মুক্তিযুদ্ধকালে পশ্চিম বঙ্গ সরকারের সেচ মন্ত্রী ও কংগ্রেসর কোষাধ্যক্ষ এ বি এ গনি খান চৌধুরী , মুক্তিযুদ্ধ কালীন পশ্চিম বঙ্গের সাস্থ্য মন্ত্রী ডা. জয়নাল আবেদিন, মুক্তিযুদ্ধ কালীন পশ্চিম বঙ্গের শিল্প মন্ত্রী মনিরুল ইসলাম চৌধুরী, সাহিত্যিক ও সংবাদিক সৈদয় মুস্তফা সিরাজ, পশ্চিমবঙ্গের শিল্পমন্ত্রী মনিরুল ইসলাম চৌধুরী, ত্রিপুরা উপ-মন্ত্রী মুনসুর আলী।

কবি গোলাম কুদ্দুস, অধ্যাপক হোসেনুর রহমান, অধ্যাপক আবু সায়ীদ আইয়ুবী ও তার স্ত্রী অধ্যাপিকা গৌরী আইয়ুবী, কাজী আবদুল ওয়াদুর, কলকাতা হাইকোটের বিচারপতি মাসুদ, কবি কাইফি আজিম, সমাজ কর্মী আফজাল হোসেন, আহমাদ হোসেন, মওলানা আবদুল লতিফ, বেগম মহবুব নসরুল্লা, ডা. এস আবিদ হুসেন, ডা কে জি সাইয়েদি, উর্দু কবি সালেহা আবু হুসাইনি, সংসদ সদস্য জুলফিকার আলী খান, সংসদ সদস্য এ কে এম ইসাক, সংসদ সদস্য আমজাদ আলী, পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু কমিশনের সদস্য গোলাম মহীউদ্দীন, আসামের আবদুল এম মজুমদার এবং আরো অনেকে।